বিনোদনসিরিয়াল

SC কোটায় চাকরি! ২ বছরে ৪ বার পেশা বদল, মিঠাইয়ের খুনীকে ধরতে পুলিশ হয়ে ট্রোলড সিদ্ধার্থ

জি বাংলার জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘মিঠাই’ (Mithai)-তে এখন চলছে দারুন ইমোশনাল পর্ব। সদ্য  সিরিয়ালে দেখা গিয়েছে গোডাউনে প্রচন্ড আগুন লেগে যাওয়ায় সেই আগুনে পুড়ে মৃত্যু হয়েছে মিঠাই রানীর। কিন্তু একথা দর্শকদের মতোই কিছুতেই মানতে চাইছে না তার উচ্ছে বাবু সিদ্ধার্থ মোদক। প্রথমে তো বারে বারেই অজ্ঞান হয়ে যাচ্ছিল সে।

কিন্তু গতকালের পর্বে দেখা গিয়েছে শেষ পর্যন্ত মৃত্যুর পরে মিঠাইরানী তার স্বপ্নে এসে তাকে শক্ত হওয়ার কথা বলেছে,আর বলেছে তাদের একমাত্র ছেলে শাক্যকে মনের মত করে বড় করে তোলার কথা। তারপরেই অনেক কষ্টে নিজের মনে জোর এনেছে সিদ্ধার্থ। মিঠাইরানির ছবির সামনে দাড়িয়ে সে প্রতিজ্ঞা করে এখন থেকে তার জীবনে হবে দুটোই লক্ষ্য।

এক সে তার ছেলে, তাদের ছেলে শাক্যকে সবকিছুতেই বেস্ট করে তুলবে। তাছাড়া যেহেতু সিদ্ধার্থ  নিশ্চিত মিঠাইয়ের মৃত্যু কোন অ্যাক্সিডেন্ট নয় এটা পুরোপুরি পরিকল্পিত খুন। তাই সে ঠিক করে নিয়েছে মিঠাইয়ের খুনিদের ধরার জন্য এবার সে নিজেই পুলিশ ফোর্সে জয়েন করবে।  আর এই বিষয়টা নিয়েই সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ট্রোলিং  শুরু করে দিয়েছেন নেটিজেনদের একাংশ।

বড়সড় কর্পোরেট চাকরি ছেড়ে  হঠাৎ করেই মিষ্টির ব্যাবসায় যোগ দেওয়া এবং তারপরে এবার সব ছেড়ে এই বয়সে সিদ্ধার্থের পুলিশ ফোর্সে  জয়েন করার ট্র্যাক দেখে ট্রোলিং করতে ছাড়েননি দর্শকরা। আসলে মাঝেমধ্যেই গল্পের খাতিরে কিম্বা টিআরপির জন্য সিরিয়ালে আজগুবি সব কান্ড দেখানো হয়। যার জেরে একাধিকবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলিং-এর মুখে পড়েছে স্টার জলসার এমনই একটি জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘ধূলোকণা’।

একসময় এই সিরিয়ালের নায়িকা ফুলঝুরি বাড়ির কাজের মেয়ে থেকে হঠাৎ গায়িকা হয়ে যাওয়ায় সোশ্যাল মিডিয়া ব্যাপক ট্রোলিং হয়েছিল। আর এবার প্রতিপক্ষ মিঠাই সিরিয়ালের নায়ক সিদ্ধার্থ পুলিশ ফোর্স জয়েন করায় তাকে নিয়ে ট্রোল করতে ছাড়লেন না ভক্তরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্টে এমনই একজন ‘ধূলোকণা’ ভক্ত লিখেছেন ‘ফুলঝুরি কখন গান শিখলো ? ফুলঝুরি কিভাবে কাজের মেয়ে থেকে গায়িকা হয়ে গেল?? এইসব নিয়ে অনেক বকবক করত মিঠাই ফ্যানরা। যদিও এসবের জবাব লীনা দি গল্পেই দিয়ে দিয়েছেন’।

Netizens trolled Sidhartha's police officer track

এরপরেই সিদ্ধার্থকে আক্রমণ করে তার সংযোজন ‘সিড তো ৩০ বছর পার হয়ে যাওয়া একটি যুবক, সেই বেডায় কি করে মিঠাই মারা যাওয়ার প্রায় ৭-৮ বছর পরে পরীক্ষা দিয়ে পুলিশে ট্রেনিং নিয়ে পুলিশ হয়ে গেল ?
কর্পোরেট চাকুরী থেকে মিষ্টিওয়ালা থেকে রিকি রকস্টার থেকে আবার মিষ্টিওয়ালা থেকে পুলিশ অফিসার। মানব সভ্যতার ক্রম বিবর্তন যেন’।  যদিও নিনকুকরা সমালোচনা করলেও মিঠাই ভক্তরা দাঁড়িয়েছেন তাদের উচ্ছে বাবু সিদ্ধার্থের পাশেই। প্রিয় নায়ককে ট্রোল করায় তারাও একেবারে ধুয়ে দিয়েছেন ধূলোকণা ভক্তদের।

Related Articles

Back to top button