সত্যিটা লুকিয়ে যাচ্ছে! এবার NCB আরো এক বড়সর চাপে ফেললো শ্রদ্ধা দীপিকা ও সারাকে


সুশান্ত সিং এর মৃত্যু রহস্য বলিউডের মাদককাণ্ডের সত্যপ্রকাশ করেছে। এরপর থেকে বহু তারকারই নাম জড়িয়েছে মাদকচক্রে ,এনসিবি তদন্তে জারার মুখেও পড়তে হচ্ছে তাদের। গতকালই অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোন ,শ্রদ্ধা কাপুর কে এনসিবি জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য।

যেমনটা জানা যাচ্ছে দীপিকা পাডুকোন কার্শমা প্রকাশের কাছে  হ্যাশের জন্য জিজ্ঞাসা করলেও সারা আলি খান ও শ্রদ্ধা কাপুর ড্রাগস নেবার কথা অস্বীকার করেছেন।শ্রদ্ধা কাপুর বলেছেন তিনি কখনোই কোনোরকম মাদক সেবন করেননি। তবে, তিনি বলেন সুশান্ত নিজের ভ্যানিটি ভ্যানে ও শুটিং এর সেটে ড্রাগস নিত। এই জেরার পর এনসিবি কর্তারা তাদের উত্তরে অসুন্তষ্ট ও আরো তদন্তের প্রয়োজন মনে করে। যার কারণে এজেন্সী তিন অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোন,শ্রদ্ধা কাপুর ও সারা আলি খানের মোবাইল বাজেয়াপ্ত করেছে তদন্তের স্বার্থে। সাথে এই কেসের সাথে জড়িত আরো ব্যক্তি যাদের যোগাযোগ থাকতে পারে তাদের মোবাইল ও বাজেয়াপ্ত করেছে।

বিভিন্ন সূত্রে যেমনটা জানা যাচ্ছে, সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার জয়া সাহা ও ফ্যাশন  ডিসাইনার সিমোন খাম্বাটার মোবাইলও তিন অভিনেত্রীর সাথে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। বাজেয়াপ্ত করা এই মোবাইলগুলি এনসিবি তদন্তের স্বার্থে ফরেন্সিকে পাঠিয়েছে। যাতে পুরোনো কোনো চ্যাট, বা প্রয়োজনীয় নথি সংগ্রহ করা যায়। এখনো অবধি এনসিবি তিন জনের কোনো অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে মাদক সেবনের পোক্ত প্রমান পায়নি।শুধু  মাত্র দীপিকা ছাড়া,কারণ দীপিকার একটি হোয়াটস্যাপ চ্যাট সামনে এসেছে। তাই দীপিকা মাদকের সমন্ধে জানত সেটা স্বীকার করেছে।

এনসিবির সূত্রে জানা যাচ্ছে বলিউডের মাদককান্ডই এনসিবির প্রধান লক্ষ্য। এনসিবি চায় সমস্ত সম্ভাব্য অভিনেতা ও অভিনেত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে। যাতে সকলের বয়ানের ভিত্তিতে বলিউডে চলা এই  বড়মাপের মাদকচক্রের পর্দাফাঁস করা যায়।


Like it? Share with your friends!

635
635 points