দ্রুত গলছে বরফ, ফুঁসছে সমুদ্র ! ভয়ঙ্কর বিপদের পূর্বাভাস জানালো নাসা


এই বছরটা যেন শুরু থেকেই বিষন্নতায় মোড়া। একেরপর এক দুঃসংবাদে ঘুম উড়েছে বিশ্ববাসীর। ফের নয়া বিপদের পূর্বাভাস দিল মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। দ্রুত গলছে গ্রিনল্যান্ড ও আন্টার্কটিকার বরফ। নাসার আশঙ্কা এভাবে চলতে থাকলে ২১০০ সালের মধ্যেই সমুদ্রের জলস্তরের উচ্চতা বেড়ে দাঁড়াতে পারে ৩৮ সেন্টিমিটার বা ১.২৫ ফুট। পূর্বেও ইন্টার-গভর্নমেন্টাল প্যানেল অন ক্লাইমেট চেঞ্জ ২০১৯’-এর বিশেষ রিপোর্টে এই বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছিল।

গবেষণায় উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা যাচ্ছে, সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য এক তৃতীয়াংশই দায়ী গ্রিনল্যান্ড ও আন্টার্কটিকার দ্রুত বরফ গলা। ক্রমবর্ধমান বিশ্ব উষ্ণায়নের ফলে মেরু অঞ্চলের বরফ গলতে শুরু করেছে। আইপিসিসি-র রিপোর্ট অনুযায়ী, কেবলমাত্র গ্রিনল্যান্ডের বরফ গলার জন্য ২১০০-র মধ্যে সমুদ্রের জলস্তর ৮ থেকে ২৭ সেন্টিমিটার বাড়বে। আর আন্টার্কটিকার বরফ গলার জন্য জলস্তর বাড়তে পারে ৩ থেকে ২৮ সেন্টিমিটার।

চলতি মাসের প্রথমার্ধ পর্যন্ত যতটা বরফ গলেছে সুমেরু সাগরে তা গত ৫০ বছরে দ্বিতীয় সর্বাধিক। এর চেয়ে বেশি বরফ এর আগে একবারই গলেছিল সুমেরু সাগরে। আট বছর আগে, ২০১২-য়।আর্কটিক সমুদ্রের বরফ সাধারণত গ্রীষ্মকালে গলে যায় এবং শীতে আবার জমতে শুরু করে। তবে ১৯৭৯ সাল থেকে নিয়মিত তোলা স্যাটেলাইট চিত্রগুলি দেখে একটি বিষয় ক্রমশ স্পষ্ট হচ্ছে যে, তাৎপর্যপূর্ণভাবে এই প্রক্রিয়াটির গতিবিধিতে পরিবর্তন এসেছে। স্বতঃস্ফূর্ততা হারিয়ে বরফ গলার পরিসর কমেছে। এই ঘটনায় স্পষ্ট, আগামীতে আরও ভয়াবহ ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে চলেছে পৃথিবী।


Like it? Share with your friends!

612
612 points