নাসা হাত ধরে মঙ্গল গ্রহের মাটি ছুঁল পারসিভের‌্যান্স! ঐতিহাসিক এই কাজে থাকছে ভারতীয়দের নামও


দীর্ঘ কয়েক শতাব্দী ধরে চলে আসা প্রচেষ্টায় ঐতিহাসিক সাফল্য! আজ বৃহস্পতিবার রাত ২.২৫ মিনিট থেকে ২টো ৩০ নাগাদ মঙ্গল গ্রহে সফল ভাবে রোভার অবতরণ করল মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা (NASA)। এখানেই শেষ নয় নাসার এই সাফল্যে অবদান রয়েছে ভারতীয়দেরও, যেটা প্রতিটি ভারতীয়দের কাছেও একটি গর্বের বিষয়। কারণ লাল গ্রহ মঙ্গলে রোভার অবতরণের জন্য কৃতিত্ব রয়েছে ৪ জন ভারতীয় বৈজ্ঞানিকের।

Nasa Perseverance Rovar to Mars

ভারতীয় সময় যখন রাত প্রায় ২টো তখন মানুষের তৈরী সর্বাধুনিক ল্যান্ডার ও রোভার পারি দিয়ে দিয়েছে মঙ্গলের উদ্দেশ্যে, চলছে লাল গ্রহে নামার শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। মঙ্গলে নেমে প্রাণের অস্তিত্ব সন্ধান করবে এই রোভার। আপনাদের তো নামটাই বলা হয়নি এই রোভারের! সর্বাধুনিক টেকনোলজিতে তৈরী এই রোভারের নাম হল ‘পারসিভের‌্যান্স’ (Persevere)।

Nasa Perseverance Rovar to Mars

আজ সেই রোভার মঙ্গলের মাটিতে সফলভাবে অবতরণ করেছে। সাথে লাল গ্রহ মঙ্গলের মাটির ছবিও পাঠিয়েছে ‘পারসিভের‌্যান্স’। যা মানব সভ্যতার ইতিহাসে আরো একটি মাইলফলক জুড়ে দিল। রোভারটি ল্যান্ড হবার সাথে সাথেই খুশিতে ও উল্লাসে ফেটে পড়েন ক্যালিফোর্নিয়ার পাসাডিনা গবেষণা কেন্দ্রের মিশন কন্ট্রোল সেন্টারের কর্মীরা।

J Bob Balram

এবার আসি ‘পারসিভের‌্যান্স’ রোভারের সাফল্যে ভারতীয়দের অবদানের কথায়। মঙ্গল যাত্রার এই মিশনে ল্যান্ডার ‘পারসিভের‌্যান্স’ এর মধ্যে থাকছে একটি হেলিকাপ্টার, যেটি ল্যান্ড হবার পর উড়বে মঙ্গলগ্রহের আকাশে। এটা মানব ইতিহাসে প্রথমবার হতে চলেছে। রোভারের মধ্যে থাকা এই হেলিকপ্টারের নাম হল ‘ইনজেনুইটি’। আর এখানেই বড় অবদান রয়েছে ভারতীদের, যার মধ্যে আছেন দুই বাঙালিও।

Soumya Dutta

মঙ্গলের মাটিতে ইনজেনুইটি সহ ‘পারসিভের‌্যান্স’ কে সঠিকভাবে নামানোর জন্য পশ্চিমবাংলার বর্ধমানের সৌম্য দত্তের অবদান রয়েছে বিশাল। সৌম্যের ডিজাইন করা প্যারাশুট দিয়েই মঙ্গল গ্রহের বুকে নামবে এই রোভার ও ল্যান্ডার। এর আগে কোনোদিন মঙ্গল গ্রহে প্যারাশুট নামাতে সফল হয়নি নাসা। যার ফলে সাফল্যের একেবারে কাছে গিয়েও তছনছ হয়ে গিয়েছে স্বপ্ন। কিন্তু এবার সেই স্বপ্ন সত্যি হতে চলেছে।

Swati Mohan

ভারতের বেঙ্গালুরুর মহিলা স্বাতী মোহন রয়েছেন এই রোভারের ন্যাভিগেশন ও গাইডেন্স অপারেশনের দায়িত্বে। এছাড়াও আছেন জে বব বলরাম, তিনিও ব্যাঙ্গালুরুর বাসিন্দা। তার কাছেই রয়েছে রোভার থেকে যে হেলিকপ্টার উড়বে তার কন্ট্রোল। মঙ্গল গ্রহে হেলিকপ্টার ওড়ানোর চিন্তা বা স্বপ্ন কয়েক দশক ধরে দেখে আসছে মানুষ তবে সেটা সম্ভব হয়েছে অনুভব দত্ত নামের এক ভারতীয়ের জন্য।

সফল অবতরণের পর মঙ্গল গ্রহের মাটি থেকেই প্রথম ছবি পাঠিয়েছে ‘পারসিভের‌্যান্স’। যা হ্যাজার্ড ক্যামেরা থেকে তোলা। ছবিতে মঙ্গল গ্রহের মাটি দেখতে পাওয়া যাচ্ছে, তবে প্রথম ছবিটি সাদা কালো ছবি। ধীরে ধীরে সেখান থেকে আরো উন্নত মানের কালার ছবি এসে পৌঁছাবে পৃথিবীতে।


Like it? Share with your friends!

677
677 points