দেখে অটোচালক মনে হলেও আসলে দেবদূত! বিনামূল্যে অক্সিজেন পরিষেবা দিচ্ছেন স্কুলশিক্ষক


দেশে করোনার (Corona virus) দ্বিতীয় ঢেউ (Second wave) মারাত্মক রকমভাবে আছড়ে পড়েছে। আগের বারের থেকেও ভয়াবহ এবারের পরিস্থিতি। সারাদেশে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে অক্সিজেনের আকাল, বেডের জন্য চলছে হাহাকার৷ রোজ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। যে যতটুকু পারছেন সাধ্যমতো বাড়িয়ে দিচ্ছেন সাহায্যের হাত। অনেক সেলিব্রিটিরাও এগিয়ে এসেছেন।

তবে এবার আপনাকে যার কথা জানাতে চলেছি তিনি কোনো সেলেব্রিটি নন। আর পাঁচটা সাধারণ মানুষের মতোই অতিসাধারণ একজন। পেশায় একজন স্কুল শিক্ষক দত্তাত্রয়া সাওয়ান্ত। মুম্বাইয়ের দয়াসাগর বিদ্যা মন্দির নামক একটি প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক তিনি। দেশের এই করুণ পরিস্থিতির সময় দেবদূতের মত হাজির হয়েছেন তিনি।

Auto Ambulance

নিজের অটো দিয়েই অসহায় করোনা রোগীদের জন্য বিনামূল্যে অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা দিচ্ছেন। যেটুকু টাকা নিজের শিক্ষকতা করে জমিয়েছিলেন সেই টাকা দিয়েই সাধ্যমত চেষ্টা করছেন মানুষের পাশে থাকার। এমনকি অটোর জ্বালানির খরচ হিসাবে তার স্ত্রীও নিজের জমানো টাকা তুলে দিয়েছেন স্বামীর হাতে। যেসমস্ত করোনা রোগীরা অ্যাম্বুলেন্স পাচ্ছেন না তাদের নিজের অটোতে করেই হাসপাতাল খুঁজতে সাহায্য করছেন।

Auto Ambulance

শুধু তাই নয়, সমস্ত করোনাবিধির কোথাও মাথায় রেখেছেন তিনি। পিপিই কিট পরেই বাইরে বেরোচ্ছেন তিনি। আর এক ব্যক্তিকে সাহায্য করার পরেই গোটা গাড়িটিকে স্যানিটাইজ করছেন সাওয়ান্ত। সংবাদ সংস্থা ANI এর দ্বারা এই মহান ব্যক্তির কাহিনী তুলে ধরা হয়েছে। আর তার এই মহান কাজের ছবি শেয়ার করেছেন বিখ্যাত ক্রিকেটার ভি ভি এস লক্ষ্মণ। এরপর ওই ব্যক্তির অটো চালানোর সমস্ত খরচ মিনিস্ট্রি অফ কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স দেবে বলেছে।

এছাড়াও মুম্বই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন এর তরফেও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে সাওয়ান্তের কাছে। দেশের এই সংকটময় পরিস্থিতিতে সত্যিই ওনার মত মানুষেরাই আজ অসহায় মানুষের কাছে ভগবান রূপে ধরা দিচ্ছেন।