খবরবিনোদন

স্মৃতিতে ডুব দিয়ে নস্টালজিক কিং খান! ছোট্ট ছোট্ট হাতে মেহেন্দি পরিয়ে দিতেন শাহরুখের মা

শাহরুখ খান (shah rukh khan),কিং অফ রোমান্স। দিনের পর দিন তাঁর অভিনয়ের জাদুতে মুগ্ধ দেশের গন্ডি ছাড়িয়ে গোটা বিশ্বের মানুষ। তবে শুধু সিনেমার পর্দায় নয় বাস্তব জীবনেও মানুষের পাশে দাঁড়াতে কখনই পিছপা হন না বলিউডের এই বেতাজ বাদশাহ। ১৯৯০ সালে মাত্র ২৬ বছর বয়সে মা ফতিমা খানকে হারিয়েছিলেন শাহরুখ।

তবে শাহরুখ মনে করেন তাঁর সব মানবিক মূল্যবোধ তিনি তাঁর মায়ের কাছ থেকে পেয়েছেন।তাঁর বর্তমান জীবনদর্শনও তিনি পেয়েছেন তাঁর মায়ের কাছ থেকে ।বর্তমানে অভিনয় ছাড়াও বেশ কিছু সমাজসেবা মূলক কর্মকান্ডের সাথে যুক্ত রয়েছেন এই সুপারস্টার।তার মধ্যে অন্যতম হল মীর ফাউন্ডেশন। এই সংস্থার মাধ্যমে তিনি অ্যাসিড আক্রান্ত অসংখ্য মহিলাদের আগামী জীবনের পথে এগিয়ে যেতে সহায়তা করে চলেছেন।

উল্লেখ্য কিছুদিন আগে এই , মীর ফাউন্ডেশনের সাহায্যে বেশ কয়েকজন অ্যাসিড আক্রান্ত মহিলাদের সাথে ভার্চুয়াল একটি চ্যাট সেশন করেছিলেন শাহরুখ।৯ মিনিটের এই ভিডিও সেশনে শুরু থেকেই বেশ খোশ মেজাজেই ধরা দিয়েছিলেন বাদশাহ।ছোটোবেলার স্মৃতিচারণা করতে করতে আচমকাই মায়ের কথা মনে পড়ে যায় কিং খানের।

ভিডিও চ্যাটে অংশগ্রহণ করা এক শাহরুখ ভক্ত জানান তিনি নিজের হাতে শাহরুখের ছবি এঁকেছেন।যা দেখে নিজের ছোটোবেলার স্মৃতি তে ডুব দিয়ে শাহরুখ নিজের হাতের তালু দেখাতে দেখাতে বলেন “সত্যি বলছি,ছোটোবেলায় আমার মা আমায় মেহিন্দি পরিয়ে দিতেন তখন দিল্লির বাড়িতে ভীষণ গরম পড়ত। তাই আমায় বলা হত অল্প মেহেন্দী পরলে তেমন গরম লাগেনা। তাই এমনি করে গোল গোল এঁকে মা আমার হাতে মেহেন্দী পরিয়ে দিতেন।”

এই ভিডিওটি নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে শেয়ার করে শাহরুখ খান লিখেছিলেন, ” এই চমৎকার মহিলাদের সাথে আবারও ব্যাক্তিগত ভাবে দেখা করার জন্য আর অপেক্ষা করতে পারছি না। মীর ফাউন্ডেশনের গোটা টীমকে আমার ভালবাসা।আমদের আবার দেখা না হওয়া পর্যন্ত আপনারা সকলে নিজের যত্ন নেবেন।”sha

Related Articles

Back to top button