খবরবিনোদনসিনেমাসিরিয়াল

শুধু অনস্ক্রিনেই নয়, বাস্তবেও ছিলেন ছেলের মত, অভিষেককে শেষ সাজে সাজিয়ে দিলেন প্রতীক

গতকালই সকালেই এসেছিল একটা অতন্ত্য খারাপ খবর। প্রয়াত অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ‍্যায় (Abhishek Chatterjee)। একসময় টলিউডের সিনেমার হিরো ছিলেন, মাঝে বেশ কিছুটা বিরতি নিয়ে ফিরেছিলেন ছোট পর্দায়। ছোটপর্দাতেও নিজের দক্ষ অভিনয় দিয়ে মন জয় করেছিলেন দর্শকের। এমন একজন অভিনেতা এভাবে চলে যাবেন কেউই ভাবতে পারেননি। এবার অভিনেত্রী প্রয়াণের পর মুখ খুললে টেলি অভিনেতা প্রতীক সেন (Pratik Sen)।

দীর্ঘদিন ধরেই অভিনয়ের সাথে যুক্ত ছিলেন অভিষেক চট্টোপাধ্যায়। লাইট ক্যামেরা অ্যাকশন অভিনয়  এগুলোই ছিল প্রাণ। সেই কারণেই শারীরিক অসুস্থতা সত্ত্বেও কাজ করে চলেছিলেন। এমনকি গত বুধবার কাজ করতে গিয়েই অসুস্থ হয়ে পড়েন অভিনেতা। তারপর ডাক্তার দেখানো হয়, হাসপাতালে ভর্তি করতে চাইলেও রাজি হননি অভিনেতা। বাড়িতেই ওষুধপত্র থেকেই স্যালাইনের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি তাতেও সকলকে শোকাহত করে বিদায় নিয়েছেন অভিষেক চট্টোপাধ্যায়।

Abhishek Chatterjee passes away

টেলিপাড়ার পরিচিত মুখ ‘মোহর’ সিরিয়ালের শঙ্খ অভিনেতা প্রতীক সেন। তবে আদি রায়চৌধুরী বললেই অভিনেতার সাথে উঠে আসবে অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের নাম। পর্দায় বাবা ছেলের ভূমিকেই অভিনয় করতেন দুজনে। তবে পর্দার সেই সম্পর্কটা শুধু অভিনয়ের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকেনি। বাস্তব জীবনেও বাবা ছেলের মতই হয়ে পড়েছিলেন দুজনে। তাই তো অনস্ক্রিন বাবার মৃত্যুতে অঝোরে কেঁদেছেন অভিনেতা।

বুধবার রাত্রে ষ্টার জলসার নতুন রিয়্যালিটি শো ‘ইসমার্ট জোড়ি’ এর শুটিং করছিলেন অভিষেক। সেই সময় তাঁর সাথেই ছিল প্রতীক। যে মানুষটা হাজারো শরীর খারাপ নিয়েও কাজ চালিয়ে যায়,  সেইদিন অসুস্থ হয়ে পড়েন। বমি করেন দু তিনবার, ডাক্তার দেখিয়ে বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়। সেই সময় প্রতীক তাঁকে বলেছিলেন, বৃহস্পতিবার অর্থাৎ গতকাল কিন্তু বড় একটা দৃশ্যের শুটিং রয়েছে।

কে জানতো সেটাই শেষ দেখা হয়ে রয়ে  যাবে। বৃহস্পতিবার সকালে যখন মৃত্যুর খবরটা শুনলেন প্রতীক তখন পায়ের নিচের মাটি সরে গিয়েছিল তাঁর। দৌড়ে উপস্থিত হয়েছিলেন অভিনেতার বাড়িতে। ইন্দ্রানী হালদার, লাবনী সরকার থেকে তৃনা সাহা আরও একাধিক তারকারা সেখান উপস্থিত ছিলেন। প্রতীক পৌঁছাতেই সকলে বলে ওঠেন ছেলের মতনই ছিল সে। এরপর নিজেই অভিষেককে শেষ সাজে সাজিয়ে দেন তিনি। এমনকি শেষ যাত্রায় কাঁধ পর্যন্ত দিয়েছেন তিনি।

এদিন প্রতীক জানান, বড় মাপের অভিনেতা ছিলেন অভিষেক চট্টোপাধ্যায়। তবুও কোনো অহংকার ছিল না তাঁর মধ্যে। শুটিং ফ্লোরে একই মাতিয়ে রাখতে সকলকে, একসাথে খাওয়া সূত্রে নিয়ে আলোচনা সব হত। একসময় আক্ষেপ করেছিলেন, বড় পর্দায় অনেক চরিত্রে অভিনয় বাকি ছিল। কিন্তু সুযোগটাই পেলেন না’।

টলিউডের সিনেমায় ভালো চরিত্র না পাওয়ার আক্ষেপ  মিটিয়ে নিয়েছিলেন ছোটপর্দার একাশি সিরিয়ালে নিজের সবটা দিয়ে। মোহর, খড়কুটো, টাপুর টুপুর, কুসুম দোলা, ফাগুন বৌয়ের মতো সিরিয়ালে অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের অভিনয় চিরকাল মনে থাকবে দর্শকদের।

Related Articles

Back to top button