বিনোদনসিরিয়াল

পুরো মনোহরাই বোমা মেরে উড়িয়ে দেবে ওমি! প্রাণ বাঁচাতে কি করবে সিড মিঠাই? চিন্তায় দর্শক

এই মুহূর্তে বাংলার জনপ্রিয় সিরিয়াল বলতে প্রথমেই আসে ‘মিঠাই’ (Mithai)-এর নাম। এখন এই সিরিয়ালে দেখা যাচ্ছে ওমির চক্রান্তে অত্যন্ত বাজেভাবে ফেঁসে গিয়েছে সিদ্ধার্থ-মিঠাই-এর গোটা পরিবার। প্রাণ সংশয়ে রয়েছে তাদের বাড়ির সকলে। যেকোনো মুহূর্তে মনোহরাতে ফেটে যেতে পারে ওমির ফিট করার টাইম বোমা (Time Bomb)। ইতিমধ্যেই সিরিয়ালে দেখানো হয়েছে মিথ্যে দুর্ঘটনার নাম করে মরে যাওয়ার নাটক করে সকলের চোখে ধুলো দিয়েছে ওমি আগারওয়াল (Omi Agarwal)।

তারপরেই মোদক পরিবারের এক মাস্টারমশায়ের ছেলের ছদ্মবেশে মনোহরাতে এসে উঠেছে সে।  তাকে দেখে বাড়ির কারো সন্দেহ না হলেও, শুরু থেকেই মনের মধ্যে একটা খটকা ছিল সিদ্ধার্থের (Sidhartha)। কিন্তু তার কথা স্বাভাবিকভাবেই কারও বিশ্বাসযোগ্য মনে হচ্ছিল না। সবাই বলছিল সে ওমিকে নিয়ে একটু বেশিই চিন্তা করে ফেলছে। তাই তার কথায় বলতে গেলে পাত্তা দেয়নি কেউই। কিন্তু তবুও পরে ওমিকে  নিয়ে সিদ্ধার্থের সন্দেহ যখন  আরো জোরালো হয় তখন সে এই ব্যাপারে রুডির  সাথে আলোচনা করতে শুরু করে।

 

Mithai Serial Adrit Roy Soumitrisha Kundu

তখনই তাদের কথা আড়াল থেকে শুনে নেয় ছদ্মবেশে থাকা ওমি আগারওয়াল। সে প্ল্যান করে যা করার সেদিন রাতেই করতে হবে। তাই সে প্ল্যান করে গোটা মনোয়ারাকে সে বোমা দিয়ে উড়িয়ে দেবে। সিডের জন্যই মৃত্যু হবে গোটা পরিবারের। এর পরেই দেখা যায় ওমি টাইম বোমা নিয়ে শেষবারের মতো পরীক্ষা নিরীক্ষা করছে। তখনই হঠাৎ করে তার ঘরে খাবার নিয়ে চলে আসে মিঠাই।

প্রথমে মিঠাইকে দেখে হকচকিয়ে গেলেও মিঠাই আসার আগেই বিছানায় পরে থাকা জামাকাপড় দিয়ে টাইমবোমা ঢেকে দেয় ওমি। আর রাতে খাবে না বলে পাঠিয়ে দে মিঠাইকে।এরপর সবাই রাতের খাওয়া দাওয়া সেরে নিজের ঘরে গিয়ে যখন ঘুমিয়ে পড়ে তখন অমি আগারওয়াল গিয়ে সিদ্ধার্থ মিঠাইয়ের মুখের ওপর স্লিপিং স্প্রে জাতীয় কিছু একটা ছড়িয়ে দেয় যাতে তাদের ঘুমটা আরো বেশি গভীর হয়ে যায়।

এরপর গভীর রাতে মনোহরার ড্রয়িং রুমে টাইম বোমা ফিট করার পাশাপাশি বাড়ির সদর দরজার উপরে একটা স্পিকার আর সিসিটিভি ক্যামেরা লাগিয়ে বেরিয়ে যায় ওমি আগারওয়াল। পরের দিন সকালে ঘুম থেকে উঠতে নিচে নেমে আসতেই  ওমি আগারওয়ালের গলা শুনে একেবারে হতবাক হয়ে যায় সিদ্ধার্থ মিঠাই।

হঠাৎই কোথা দিয়ে ভেসে আসছে ওমি আগারওয়ালের গলা। প্রথমে কেউ কিছুই বুঝতে পারছিল না। পরে সিদ্ধার্থের নজরে আসে ক্যামেরা। এরপর গোটা মোদক পরিবারকে নানা ভাবে শাসাতে থাকে ওমি। এখন দেখার ওমির ফিট করা টাইম বোমার হাত থেকে সিদ্ধার্থ মিঠাই  কিভাবে বাঁচায় গোটা পরিবারকে।

Related Articles

Back to top button