সাত পাকে বাঁধা পড়েছেন আগেই! এবার পর্দায় ফিরছেন জনপ্রিয় টেলিতারকা মিমি দত্ত


বাংলা টেলিভিশনের এক অভিনেত্রী হলেন মিমি দত্ত (Mimi Dutta)। দীর্ঘদিন ধরেই টেলিভিশনের পর্দায় অভিনয় করে আসছেন অভিনেত্রী। ভুতু, গোয়েন্দা গিন্নি, জয়ী, রানু পেল লটারীর মত সিরিয়ালে দারুন অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী। নিজের অভিনয় দিয়ে দর্শকদের মন জয় করেছেন প্রতিবারই। এবছরেরই ফেব্রুয়ারি মাসে ওম সাহানির (om sahani) সাথে সাত পাকে বাঁধা পড়েছে অভিনেত্রী মিমি। ওম-মিমির বিয়েটা ছিল সবার থেকে আলাদা। ওম-মিমির বিয়েতে পুরোহিত ছিল এক মহিলা, যার কারণে দুজনের বিয়েটা আরো স্পেশাল হয়ে ওঠে।

দুজনের বিয়ের একাধিক ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার হতেই ভাইরাল হয়ে পড়েছিল ঝড়ের বেগে। বিয়েতে আরো একটি স্পেশাল জিনিস ঘটেছিল। সিঁদুরদানের পর মিমি নিজের কপাল থেকে একটু সিঁদুর নিয়ে সেটা ওমের মাথায় পরিয়ে দিয়েছিল। অর্থাৎ দুজনেই একেঅপরকে সিঁদুর দান করেছিলেন। যেটা বছরের শুরুতে একাধিক সেলেব বিয়ের মধ্যে একেবারেই হাটকে ছিল।

মিমি দত্ত Mimi Dutta

তবে বিয়ে মিটেছে বেশ কিছুদিন হল, এবার কাজে ফেরার পালা। যেমনটা জানা যাচ্ছে বিয়ের পর নিজের প্রথম কাজ নিয়ে বেশ উৎসাহী ছিলেন অভিনেত্রী। কিন্তু বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কারণে কাজ কিছুটা শুরু হলেও অসমাপ্তই রয়ে গেছে। নিশ্চই জানতে ইচ্ছে করছে নতুন কোন ধারাবাহিকে দেখা যাবে অভিনেত্রীকে। তাহলে বলি ‘মহাপীঠ তারাপীঠ’ সিরিয়ালের একটি গল্পে দেখা যাবে অভিনেত্রীকে।

আসলে কাজ নিয়ে খুব বেশি চিন্তিত নন অভিনেত্রী। তার চিন্তা করোনা পরিস্থিতি নিয়ে। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি বেশ উদ্বেগজনক। তাছাড়া বাড়িতে বয়স্ক মানুষ ও ছোট বাচ্চারা আছে তাদের কথাও মাথায় রাখতে হয়। তাই ছোটো খাটো কাজের কথাই মূলত ভেবেছিলেন অভিনেত্রী। সেই কারণেই ‘মহাপীঠ তারাপীঠ’ সিরিয়ালের জন্য রাজি হন তিনি। তবে তিনি বর্তমানে বাড়িতে থাকলেও স্বামী ওমকে বেরোতে হচ্ছে কাজের জন্য সেটাই চিন্তার কারণ।

প্রসঙ্গত, বাঙালির প্রিয় সিরিয়ালের তালিকায় রয়েছে ‘মহাপীঠ তারাপীঠ’ সিরিয়ালটি। দীর্ঘদিন ধরেই দর্শকদের মন জয় করে আসছে সিরিয়ালটি। সিরিয়ালে সব্যসাচী চৌধুরি, রুষা চট্টোপাধ্যায়, আয়েশা ভট্টাচার্যের মতো শিল্পীরা রয়েছেন।

বিঃ দ্রঃ আর্টিকেলটির শিরোনাম প্রথমে বিভ্রান্তমূলক ছিল, এর জন্য আমরা অত্যন্ত দুঃখিত। আমরা আমাদের প্ৰতিটি পাঠকের কাছে ও অভিনেত্রী মিমি দত্তের ক্ষমাপ্রার্থী ! বর্তমানে শিরোনামটি পরিবর্তন করে দেওয়া হয়েছে।