বিনোদনসিনেমা

আমি থাকবো না তো কে থাকবে! সম্পর্কের তিক্ততা ভুলে বোনুয়া নুসরতের পাশে থাকার বার্তা দিলেন মিমি

নুসরত জাহান (Nusrat Jahan) এবং মিমি চক্রবর্তী (Mimi Chakraborty) দুজনেই টলিউডের প্রথম সারির নায়িকা। রাজনীতির ময়দানেও একসাথে নেমেছিলেন এই দুই টলি সুন্দরী। ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁদের বন্ধুত্ব ছিল অনেকের কাছে উদাহরণ। হিরোইন মানেই ক্যাট-ফাইট, একে অপরকে টেনে নীচে নামানো এসব মিথ ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছে নুসরত মিমি জুটি। কিন্তু নিখিল জৈনের সাথে সম্পর্ক ভাঙা থেকে শুরু করে নুসরতের গর্ভাবস্থা এই গোটা সময়টায় মিমি যে নুসরতের পাশেই আছেন তার কোনো আভাস পাওয়া যায়নি।

বিশেষ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় দুজনেই অ্যাক্টিভ থাকলেও তাঁদের দুজনকেই বেশীরভাগ সময় নিজেদের মতো করে জীবনকে উপভোগ করার দৃশ্য ধরা পড়েছে। বিশেষ করে ফ্রেন্ডশিপ ডে তেও তাদের একে অপরের উদ্দেশ্যে কোনো বার্তা দিতে দেখা যায়নি। এরফলে সবাই একপ্রকার ধরেই নিয়েছিল বোনুয়া নুসরতের সাথে মিমির সম্পর্ক তলানিতে ঠেকেছে।

কিন্তু এসবের মধ্যেই সমস্ত গুজব উড়িয়ে ফের একবার প্রিয় বান্ধবীর পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন মিমি। আর বন্ধুত্ব ভাঙার গুঞ্জন প্রসঙ্গে মিডিয়ায় ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে তাঁর সাফাই ‘দূরত্ব তো কখনও তৈরি হয়ইনি,তবে প্রেস আর মিডিয়ার তৈরি করা দূরত্ব বটেই’। সেই টুইট রি-টুইট করেছেন খোদ নুসরত জাহানও। আর এভাবেই দুই বান্ধবী মিলে ফের একবার নিজেদের বন্ধুত্ব অটুট থাকার বার্তা দিয়েছেন।

তাঁদের সম্পর্কের ইকুয়েশন যে আগের মতোই রয়েছে তা এদিন জোর দিয়ে বোঝান মিমি। এ সম্পর্কে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অনুযোগের সুরে মিমি বলেন , ‘যদি গাছ থেকে ফল পড়ে লোকে ভাবে মিমি-নুসরত বোধহয় ঝগড়া করছেন! কিংবা কারুর সঙ্গে কারুর সম্পর্ক ভাঙল। সেখানেও জুড়ে দেওয়া হল আমাদের নাম’।

কিন্তু বন্ধুদের মধ্যে যেমন ঝগড়া হয়,নুসরতের সঙ্গেও যে তাঁর তেমন ঝগড়া হয়, সেটা মেনে নিয়েই মিমি জানান, ঝগড়া মানেই বন্ধুত্বে ছেদ এমনটা ভাবার কোনও কারণ নেই। সেইসাথে এদিন সেপ্টেম্বরেই নুসরতের মা হওয়ার খবরে সিলমোহর দিয়ে মিমি বলেন, ‘একটা মেয়ের জীবনের সবচেয়ে সেরা সময়। এখন ওর আনন্দের সময়। এই সময় আমি ওর পাশে থাকব না! তো কে থাকবে?’

Related Articles

Back to top button