রেসিপি

স্বাদ বদলাতে রাঁধুন এক্কেবারে নতুন রান্না! রইল গ্রামবাংলার প্রচলিত মানকচুর ভর্তা তৈরির রেসিপি

একমাত্র বাঙালিরাই বোধহয় শাক পাতাকেও সুস্বাদু খাবারে পরিণত করতে পারে। যেকোনোও গাছের আগা থেকে ডগাও তারা এমন করে রান্না করে দেবে যে আপনি হাত চেটে সাফ করতে বাধ্য হবেন। এরা বিভিন্ন ধরণের খাবার খেতে যেমন ভালোবাসেন, তেমনই এদের নিত্য নতুন রান্না বানানোর শখও প্রবল।

তেমনই গ্রাম বাংলার খুব প্রচলিত একটি খাবার হল মান কচু। কচু নাম টা শুনতে ভালো না লাগলেও, কচুর শাক, লতি সবই কিন্তু খেতে বেশ মজাদার৷ তবে আজ আপনাদের জানাব মান কচুর ভর্তা রেসিপি। একবার এই স্বাদ পেলে আজন্মেও ভুলবেন না তা হলফ করে বলতে পারি। তবে সমস্যা একটাই আগে ভাগেই বলে রাখি ভালো জাতের কচু না হলে কিন্তু গলা চুলকোতে পারে, সেটা কেনার সময় একটু বুঝে নেবেন। তবে আর দেরী কেন ঝটপট শিখে নিন মান কচুর ভর্তা (Man Kochur Varta) তৈরির রেসিপি।

মান কচুর ভর্তা তৈরি করতে লাগবে-

একটা বড়ো মান কচুর টুকরো
নারকেল কোড়া
আদা কুচি
কাঁচা লঙ্কা
চিনি
নুন
সরষের তেল
আর তেঁতুলের কাঁথ (যদি আপনি টক ঝাল মিষ্টি পছন্দ করেন)

প্রণালী

প্রথমে মানকচুর ছাল ছাড়িয়ে, ছোট ছোট টুকরো করে কেটে ভালো করে ধুয়ে সেদ্ধ করে নিতে হবে।

মান কচু সেদ্ধ হয়ে গেলে শিলনোড়া বা মিক্সারে পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে।

অন্যদিকে নারকেল কোড়া, আদা কুচি, আর লঙ্কাও আলাদা ভাবে বেটে নিন।

এরপর কড়ায় সামান্য তেল গরম করে মান কচুর পেস্ট দিয়ে ভালো করে নেড়ে চেড়ে নিন।

এরপর তাতেই ওই নারকেল কোড়া আর লঙ্কার পেস্ট টাও দিয়ে ভালো করে কষিয়ে, স্বাদ মতো নুন এবং চিনি মিশিয়ে নিন৷

কিছুক্ষন পরে যখন তেল কড়ার গা থেকে ছেড়ে আসবে তখন তেঁতুলের কাথ্ টা ঢেলে, ভালো ভাবে মিশিয়ে নাড়াতে থাকুন। সামান্য জল দিতে পারেন। পুরোটা মাখা মাখা হয়ে এলে নামিয়ে পরিবেশন করুন ভাত বা রুটির সাথে৷

Related Articles

Back to top button