গসিপবিনোদনসিনেমা

জুটেছিল নোংরা অভিনেত্রীর তকমা! আসলে মেয়েরাই মেয়েদের শত্রু, অভিনয়ে ফিরে বিস্ফোরক মল্লিকা

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মল্লিকা শেরাওয়াত (Mallika Sherawat) । একসময় সিলভার স্ক্রিনে তার উপস্থিতি মানেই উষ্ণতার পারদ চড়ত তরতরিয়ে। ছোট থেকেই জেদ ছিল অভিনেত্রী হবেন। তাই বাড়ির লোকের বিশেষ করে বাবার অমত আছে জেনে বাড়ি থেকে পালিয়ে এসোজা মুম্বইয়ে চলে এসেছিলেন নিজের স্বপ্ন সত্যি করতে। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন ,’বাবা স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছিলেন যদি ‘ফিল্ম লাইন’-এ আসি তাহলে তিনি আমাকে ত্যাগ করবেন।’

সেদিন ত্যাজ্য সন্তান হওয়ার ভয়ে এক ফোঁটাও ঘাবড়াননি তিনি। পুরুষতন্ত্রকে জবাব দিতে সেদিন বাড়ি থেকে পালিয়ে এসেছিলেন। তার জন্য নিজের ভাগ্যকে ধন্যবাদ দিয়ে মল্লিকা বলেন ‘আমার ভাগ্য ভাল ছিল, যে এই ইন্ডাস্ট্রি আমাকে ফিরিয়ে দেয়নি। আমি আমার স্বপ্নকে শেষমেশ সত্যি করতে পেরেছি।’ তবে সেই পথ মোটেই মসৃণ ছিল না। এপ্রসঙ্গে মল্লিকা বলেন ‘মুম্বাইয়ের মতো বড় শহরে নিজেকে মানিয়ে নিতে অনেক সময় লাগে। এখনকার সংস্কৃতি, প্রতিষ্ঠিত হওয়া- অনেক বিষয় থাকে। তবে আমি খুব দ্রুতই সব ঠিক করে নিয়েছিলাম।’

প্রসঙ্গত,শুরুতেই ২০০৩ সালে ‘খোয়াইশ’ ছবিতে অভিনয় করে শোরগোল ফেলে দিয়েছিলেন নায়িকা। ছবি জুড়ে নায়িকার একাধিক ঘনিষ্ঠ দৃশ্য এসেছিল খবরের শিরোনামে। পরবর্তীতে ‘মার্ডার’ (Murder)-এ অভিনয় করার পর থেকেই আলোচনা কেন্দ্রে চলে আসেন তিনি। তার অন্যতম কারণ, ঘনিষ্ঠ দৃশ্য। মল্লিকার কথায় তার হাত ধরেই ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে অভিনয়ের মাধ্যমে সাবালক হয়ে ওঠে বলিউড।

তবে ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে অভিনয় করার জন্য একসময় তাকে নিয়ে দেশ জুড়ে শুরু হয় তুমুল সমালোচনা। এতদিন পর অবশেষে নিজের সাথে ঘটে যাওয়া অন্যায় আচরণের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন অভিনেত্রী। তার অভিযোগ একসময় তাকে নিয়ে নোংরা নোংরা লেখা বার হত। নোংরা অভিনেত্রীর ট্যাগ দেওয়া হয়েছিল তাকে। যার জন্য একসময় দেশ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছিলেন তিনি।

মল্লিকার কথায় তিনি বিকিনি পরতেন, পর্দায় চুম্বনের দৃশ্যে অভিনয় করতেন তাতে অনেকের আপত্তি ছিল। আর তারা কেউ পুরুষ নন। বরং সকলেই মহিলা তাই মল্লিকার দাবি,একমাত্র মেয়েরাই মেয়েদের শত্রু। তাই তিনি দেশ ত্যাগ করেন। সম্প্রতি এমএক্স প্লেয়ারের ওয়েব সিরিজ ‘নাকাব’ (Nakaab)-এ একজন ক্ষমতালোভী মহিলা প্রযোজকের ভূমিকায় অভিনয় করে শিরোনামে এসেছেন তিনি।

Related Articles

Back to top button