খবরগসিপবিনোদনসিনেমা

বাবা যেটা ৫০ বছরে পাইনি মেয়ে সেটা ২ বছরেই পেয়েছে! আলিয়াকে নিয়ে গর্বিত পরিচালক মহেশ ভাট

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী আলিয়া ভাট (Alia Bhatt)। অবশ্য আলিয়ার আরো কয়েকটি পরিচয়ে রয়েছে, বলিউডের বিখ্যাত পরিচালক মহেশ ভাটের (Mahesh Bhatt) কন্যা আলিয়া। আবার বলিউডের ড্যাশিং হিরো রণবীর কাপুরের বর্তমান প্রেমিকা তথা হবু স্ত্রী আলিয়া। যদিও এখনো বিয়ে হয়নি তবে রণবীর আলিয়ার বিয়ে নিয়ে গুঞ্জন কম নেই বিটাউনে। তবে যায় হোক না কেন মেয়েকে নিয়ে গর্বিত পরিচালক বাবা।

২০১২ সালে ‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার’ ছবি দিয়ে বলিউডের যাত্রা শুরু করেছিলেন আলিয়া। এরপর একেরপর এক সুপারহিট ছবিতে অভিনয় করে দর্শকদের কাছে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে সে। আর ইতিমধ্যেই ইন্ডাস্ট্রির প্রথম সারির অভিনেত্রীর মধ্যে নাম উঠে গিয়েছে আলিয়ার। খুব কম সময়ে আর কম সংখ্যক ছবিতে অভিনয় করেই এতটা সাফল্য পেয়ে গিয়েছে আলিয়া।

Alia Bhatt

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে মেয়ের এই সাফল্য নিয়ে মুখ খুলেছেন বাবা মহেশ ভাট। পরিচালকের মতে, আলিয়া বাবা মায়ের পরিবর্তী সম্প্রসারণ নয়। ওর মধ্যে একটা লুকানো আগুনের মত প্রতিভা রয়েছে। আমি নিজে একজন নিজে একজন পরিচালক ঠিকই, তবে ইন্ডাস্ট্রির মধ্যেই সারাটা দিন কাটত। আর আলিয়াও বেশ পরিশ্রমী হয়েছে, কাজকে ভালোবেসে খুব মনোযোগ সহকারে কাজ করে আলিয়া।

Alia Bhatt Mahesh Bhatt

এখানেই শেষ নয়, মেয়ের সাফল্যের সাথে আরো বেশ কিছু বিশেষণ যোগ করেছেন পরিচালক বাবা। তাঁর মতে, ‘পরিচালক হিসাবে আমি ৫০ বছর ধরে যেটা যায় করেছি তার থেকে বেশি হয়তো ২ বছরের মধ্যেই আয় করেছে’। এই প্রসঙ্গে বলে রাখা ভালো ২০১৯ সালে সর্বোচ্চ ১০০ জন টাকা উপার্জনকারী অভিনেত্রীদের মধ্যে নাম ছিল আলিয়ার। তাও আবার প্রিয়াঙ্কা, দীপিকার মত প্রথম সারির অভিনেত্রীদের টপকে।

Ranbir Kapoor Alia Bhatt

সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে মেয়ের সাফল্যে দারুন খুশি বাবা। এরই মধ্যে বিয়ের গুঞ্জন আবারো জোরালো হো হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরেই রণবীর আলিয়ার বিয়ে নিয়ে চর্চা চলে আসছে বিটাউনে। অনেকে ভেবেছিলেন বিয়েটা হয়তো এবছরেই হয়ে যাবে। কিন্তু করোনার জেরে সেটা হয়নি। এরপর সম্প্রতি আবারো তাদের বিয়ের গুঞ্জন জোরালো হয়েছে সোশাল মিডিয়াতে। অনেকের ধারণা এবছরের ডিসেম্বরেই বিয়ে হচ্ছে দুজনের যদিও আলিয়ার মা সোনি  রাজদান (Soni Razdan) জানিয়েছেন এখনই হচ্ছে না রণবীর আলিয়ার বিয়ে।

Related Articles

Back to top button