খবরবিনোদনসিনেমাসিরিয়াল

অর্থ কষ্টে ভুগছেন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী শাগুফতা আলি, পাশে দাঁড়ালেন মাধুরী দিক্ষীত

করোনার কোপে বিগত দেড় বছর ধরে ধুঁকছে দেশের অর্থনীতি। ইতিমধ্যেই কাজ হারিয়ে দিশেহারা অসংখ্য মানুষ। বিভিন্ন পরিষেবার মতোই ধাক্কা খেয়েছে বিনোদন জগত। এই পরিস্থিতিতে কাজ হারিয়ে ব্যাপক অর্থ সংকটে পড়েছেন  অসংখ্য কলাকুশলী। তেমনই অর্থকষ্টে ভুগছেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাগুফতা আলি (Shagufta Ali)। দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন এই অভিনেত্রী হিন্দি টিভি  সিরিয়ালের  অন্যতম পরিচিত মুখ। একাধিক হিন্দি সিরিয়ালের পাশাপাশি অভিনয় করেছেন সিনেমাতেও। ১৯৮৯ সালে বড় পর্দায় প্রথম  ‘অন্ধা কানুন’ সিনেমায় অভিনয় করেন এই অভিনেত্রী।এই সিনেমায় তিনি দিলীপ কুমার, নুতন, সঞ্জয় দত্ত, মাধুরী দিক্ষিতের সাথে পর্দা ভাগ করেছিলেন।

টেলিভিশনেও ‘দর্দ’, ‘ভীরা’, ‘শশুরাল সিমর কা’ , ‘সাথ নিভানা সাথিয়া’-র মতো বহু জনপ্রিয় সিরিয়ালে  কাজ করেছেন অভিনেত্রী। কিন্তু বর্তমানে কাজ নেই অভিনেত্রীর কাছে। শারীরিকভাবেও অসুস্থ তিনি।
শেষ পর্যন্ত একপ্রকার বাধ্য হয়েই গত সপ্তাহে সোশ্যাল নিজের পরিস্থিতির কথা জানিয়েছেন অভিনেত্রী।তবে অভিনেত্রীর কথায় লকডাউন নয় গত ৪ বছর ধরেই তাঁর হাতে কোনও কাজ নেই। আর্থিক সংকটে ভুগছেন। তাঁর এবং তাঁর মায়ের চিকিৎসা করানোর মত টাকাও নেই তাঁর কাছে। খরচ জোগাতে ইতিমধ্যেই নিজের গয়না, গাড়ি সব বিক্রি করে দিয়েছেন অভিনেত্রী।

Madhuri Dixit helps Shagufta Ali

গোটা বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই সম্প্রতি কালারস টিভির তরফ থেকে যোগাযোগ করা হয় অভিনেত্রীর সাথে। তাঁকে চ্যানেলের জনপ্রিয় রিয়ালিটি শো ‘ডান্স দিওয়ানে’ (Dance Deewane)তে অতিথি হিসাবে আসার নিমন্ত্রণ জানানো হয়। সেখানেই  ‘ডান্স দিওয়ানে’ এবং মাধুরী দিক্ষিতের(Madhuri Dixit) তরফ থেকে তাঁর হাতে ৫ লক্ষ টাকার চেক তুলে দেওয়া।এই ঘটনার আকস্মিকতায় বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী।

Madhuri Dixit helps Shagufta Ali

এরপর সোশ্যাল মিডিয়ায় শাগুফতা জানিয়েছেন, ” বহুদিন ধরেই আমার এক টাকাও রোজগার নেই। কিভাবে সংসার চালাবো জানি না। তার মধ্যে আমার চিকিৎসার খরচও আছে। একটাও কাজ নেই হাতে। টাকাও নেই। বহু বার মনে হয়েছে সুইসাইড করে নিই। এভাবে আর বেঁচে থাকা যাচ্ছে না। তখন বলিউডের আমার কিছু ঘনিষ্ঠদের থেকে সাহায্য চাই। অনেকেই ফোন করে আশ্বাস দেন। কিন্তু সাহায্য পাই না। এর পর আমি ভাবি আজ কাল সব তো সোশ্যাল মিডিয়াতেই হয়। তাই সেখানেই নিজের কষ্টের কথা তুলে ধরে সাহায্য চাই। এবং আমার কথা জানতে পেরে মাধুরী দিক্ষিত থেকে জনি লিভার সকলেই সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন। আমার চিকিৎসার এবং অভাব মেটাবার মতো কিছু টাকা জোগাড় হয়েছে। আমি ভাবিনি সবাই এভাবে পাশে থাকবেন।”

শাগুফতার মায়ের বয়স ৭৩ বছর। বিভিন্ন অসুখে আক্রান্ত তিনি। তাঁর চিকিৎসার জন্যও প্রতি মাসে মোটা টাকার প্রয়োজন হয়। উল্লেখ্য ৫৪ বছরের এই অভিনেত্রী একসময় ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছিলেন। আর সেসময় কেমো নিতে হয়েছিল তাঁকে। যার সাইড এফেক্ট হিসাবে এখন নানা সমস্যায় ভুগছেন অভিনেত্রী নিজেও। তবে  শারীরিক ও অন্যান্য সমস্ত প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে যত দ্রুত সম্ভব অভিনয়ে ফেরার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী।

Related Articles

Back to top button