গসিপবিনোদন

ভাগ্যিস কোনো সন্তান হয়নি! ডিভোর্সের ৪ বছর পর মুখ খুললেন টলিপাড়ার মিষ্টি নায়িকা মধুমিতা

বাংলা টেলিভিশনের ‘বোঝে না বোঝে না’ (Bojhena se Bojhena) সিরিয়ালের অভিনেত্রী মধুমিতা সরকার (Madhumita Sarcar)। সিরিয়ালে পাখি চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন মধুমিতা। আজ সেই পাখিই ধীরে ধীরে বাঙালির মনে ঝড় তুলতে শুরু করেছে। সিরিয়াল শেষ হবার পর কেটে গেছে অনেকটা সময়। তবে জনপ্রিয়তা কমেনি বরং বেড়েছে হু হু করে।

Madhumita Sarkar মধুমিতা সরকার

খুব অল্প বয়সেই ইন্ডাস্ট্রিতে বেশ পাকাপোক্ত জায়গা করে নিয়েছেন মধুমিতা। কিছুদিন আগে প্রীতম দাসগুপ্তের ছবি ‘লভ আজকাল পরশু’ ছবিতে মিষ্টি মেয়ে পাখির মোহময়ী রূপে কার্যত চোখ কপালে ওঠার জোগাড় হয়েছিল দর্শকদের। সম্প্রতি মৈনাক ভৌমিকের ছবি ‘চিনি’তে টলিউডের তাবড় অভিনেত্রী অপরাজিতা আঢ্যর (Aparajita Adhya) সঙ্গে পর্দা ভাগ করেন মধুমিতা।

তবে কেরিয়ারের গ্রাফ তরতরিয়ে উঠলেও ব্যক্তিগত জীবন মোটেও সুখকর নয় অভিনেত্রীর। ২০১৫ সালের জুলাই মাসে বাংলা ইন্ডাস্ট্রির আরেকজন জনপ্রিয় মুখ সৌরভ চক্রবর্তীর সঙ্গে বিয়ে করেছিলেন অভিনেত্রী৷ ২০১১ সাল থেকে কোনো এক সিরিয়ালের সেট থেকে প্রেম তাদের। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি।

সৌরভের সঙ্গে খুব বেশিদিন সংসার করতে পারেননি মধুমিতা, বরং দিন কয়েকের মধ্যেই ঘটেছে ডিভোর্স। বিচ্ছেদের প্রায় ৪ বছর পর ‘লভ আজকাল পরশু’ ছবির মুক্তির সময় নিজের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মুখ খোলেন মধুমিতা।

মধুমিতা ডিভোর্সের কারণ হিসাবে জানিয়েছিলেন, “আমার আর সৌরভের বনিবনাটা ঠিক হয়নি। সৌরভ ভালো মানুষ, আমি চাই ও ভালো থাকুক।” মধুমিতা আরও জানান, তাদের ভাবনা চিন্তার কোনোও মিল ছিলনা। আর সেই কারণেও তাদের মধ্যে জটিলতা বাড়ছিল, তবে মধুমিতার কথায় “ভাগ্যিস, কোনোও সন্তান হওয়ার আগেই ডিভোর্সটা হয়ে গিয়েছিল”। সম্পর্কের সমস্ত জটিলতা ভুলে এখন নিজের কেরিয়ারে সফলতার শীর্ষে রয়েছেন মধুমিতা।

Related Articles

Back to top button