বিনোদনসিনেমাসিরিয়াল

মধুমিতার পুজো প্রেম! ক্লাস সিক্সের গোপন প্রেমিকের কথা ভেবে আজও আফসোস হয় নায়িকার

সানন্দা টিভির “সবিনয় নিবেদন” দিয়ে অভিনয় জগতে পা রেখেছিলেন মধুমিতা সরকার (Madhumita Sarcar)। তারপর এসভিএফ প্রযোজিত স্টার জলসার “বোঝে না সে বোঝেনা” সিরিয়ালের পাখি চরিত্রের মাধ্যমেই দর্শক মনে পাকাপাকি ভাবে জায়গা করে নেন অভিনেত্রী। তাই সিরিয়াল শেষ হয়ে গেলেও বাংলার মানুষ আজও তাকে পাখি নামেই চেনেন।

ছোটোপর্দাকে বিদায় জানিয়ে অনেকদিন আগেই সিনে দুনিয়ায় পা রেখেছেন অভিনেত্রী।অভিনয় ছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো অ্যাকটিভ থাকেন অভিনেত্রী। দর্শকদের মনোরঞ্জন করতে ছবির সাথে নিত্যনতুন রিল ভিডিও করে থাকেন তিনি। ইনস্টাগ্রাম খুললেই অভিনেত্রীর প্রোফাইলে ‘রিলস’-এর ছড়াছড়ি। প্রায় দিনই নিত্য নতুন লুকের সাথে নানান রিল ভিডিও করেন তিনি

Madhumita Sarcar

এখন চারদিকে পুজোর গন্ধ। আর মাত্র কয়েকদিনের অপেক্ষা। পুজো আসতে বাকি আর মাত্র কটা দিন। তারপর সারা বছরের অপেক্ষার অবসান হবে। তাই এখন সবাই তুমুল ব্যস্ত পুজোর কেনাকাটা করতে। ব্যাতিক্রম নন সেলিব্রেটিরাও। তবে সবাইকে অবাক করে দিয়ে সকলের প্রিয় পাখি ওরফে মধুমিতা সরকার জানালেন এই বছর এখনও পুজোর কেনাকাটা শুরুই হয়নি তার!

তাই ছোটবেলার মতই আপাতত তার পুজোর স্টাইল স্টেটমেন্টের ভরসা মায়ের শাড়িই। পুজোকে ঘিরে সকলের মতো মধুমিতারও ছোটো বেলার অনেক স্মৃতি আছে। আর বাঙালির কাছে পুজো মানেই সাজগোজ,খাওয়া দাওয়া, আর আড্ডার, সাথে সাথেই ওতোপ্রতোভাবে জড়িয়ে আছে পুজো প্রেম। ছোটবেলায় ঘটে যাওয়া এমনই এক মজার ঘটনা ভাগ করে নিয়েছেন মধুমিতা।

পুরনো স্মৃতি হাতড়ে অভিনেত্রী বলতে শুরু করেন ‘তখন ক্লাস সিক্স। পুজোয় বেরিয়েছি। হঠাৎ বন্ধুরা এসে বলল, একজনের নাকি আমায় পছন্দ হয়েছে। আমায় জন্য ঘুরঘুর করছে। ছেলেটি সম্ভবত ক্লাস টেনে পড়ত। স্কুলেই দেখেছিল আমায়। তারপর গোটা পুজো আমি খুব সেজেগুজে ঘুরেছি এটা ভেবে যে, আমার পিছনে ঘুরছে ওই ছেলেটা। এবং সত্যিই ঘুরেছিল। কিন্তু তখন অনেক ছোট, বাবা, মায়ের হাত ছাড়াতে পারিনি। তাই কথাও বলা হয়নি।’

Related Articles

Back to top button