বিনোদনসিরিয়াল

কেশব এখনও স্তন্যপান করে! তাই ছেলের সুরক্ষার কথা ভেবে বাড়িতেই পুজো কাটাবেন ‘মা’ মধুবনী

বাঙালির বিনোদনের অন্যতম অঙ্গ হল সিরিয়াল। আর এই সিরিয়ালের হাত ধরেই অভিনেতা অভিনেত্রীরা হয়ে ওঠেন দর্শকদের একেবারে ঘরের মানুষ। স্টার জলসার এমনই একটি জনপ্রিয় সিরিয়াল ভালোবাসা ডট কম (Bhalobasa Dot Com)। সিরিয়াল শেষ হয়ে গেলেও সিরিয়ালের নায়ক নায়িকা ওম -তোড়ার জুটি আজও দর্শকমহলে সমান জনপ্রিয়। এই সিরিয়ালের হাত ধরেই পর্দার মতোই বাস্তব জীবনেও একে অপরের প্রেমে পড়েছিলেন রাজা এবং মধুবনী।

এখন তাঁদের সম্পর্কের বয়স ১১ বছর। ২০১৬ সালে বিয়ের পর ৫ বছরের মাথায় অর্থাৎ চলতি বছরেই তাঁদের কোল আলো করে এসেছে তাঁদের পুত্র সন্তান কেশব (Keshav)। এখন মধুবনীর ছেলে অন্ত প্রাণ। তাই আপাতত অভিনয়েও ফিরছেন না তিনি। রাজা এবং মধুবনী সোশ্যাল মিডিয়ায় নিয়মিত অ্যাক্টিভ থাকলেও ছেলে কেশবের তেমন কোনো ছবি শেয়ার করেন না তাঁরা।Madhubani Goswami মধুবনী গোস্বামী

আজ দুর্গাপঞ্চমী। দেখতে দেগতে আজকের এই বিশেষ দিনেই ছয় মাসে পা রাখল ছোট্ট কেশব। তাই আজকের দিনেই ছেলের জন্য অন্নপ্রাশনের ব্যবস্থা করেছিলেন রাজা এবং মধুবনী। এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেলেকে কোলে নিয়ে সপরিবারে একটি ছবি শেয়ার করেছেন অভিনেত্রী। তাঁর পরনে রয়েছে সবুজ বেনারসী, লাল ব্লাউজ, শাঁখা, পলা, সিঁদুরের টিপ। অন্যদিকে রাজা ছিলেন একেবারেই ঘরোয়া পোষাকে।

আর সকলের নজর যার দিকে সেই কেশব পড়েছিলেন লাল পাঞ্জাবির,সাথে ঘিয়ে রঙা ধুতি। তবে এদিন ছেলেকে কোলে নিয়ে ছবি শেয়ার করলেও ছেলের মুখ দেখাননি অভিনেত্রী। এই ছবির ক্যাপশনে সকলের প্রিয় ‘তোড়া’ লিখেছেন, ‘কেশবের অন্নপ্রাশন। শুভ মহাপঞ্চমী’। ছেলের অন্নপ্রাশনের ছবি শেয়ার করেছেন রাজাও। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন আমার কেশবের অন্নপ্রাশন।ছবি দেখে বোঝাই যাচ্ছে করোনা আবহে একেবারেই ঘরোয়া ভাবে পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে ছেলের অন্নপ্রাশনের আয়োজন করেছিলেন এই সেলিব্রিটি জুটি।

এবছর ছেলে কেশবের সাথে প্রথম পুজো কাটাবেন মধুবনী। তাই ছেলেই তাঁর একমাত্র প্রায়োরিটি। আর সেই কারণেই করোনা সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে ছেলের সাথে পুরো পুজোটাই বাড়িতে বসে কাটাবেন অভিনেত্রী। এপ্রসঙ্গে সংবাদমাধ্যমে অভিনেত্রী জানিয়েছেন ‘অতিমারির মধ্যেই ছেলে কেশবের প্রথম পুজো। ও এখনও স্তন্যপান করে। তাই অনেক বিধিনিষেধ মেনে চলতে হয় আমাকে। সব সময় মাথায় থাকে, কেশবের যেন কোনও সমস্যা না হয়।’

Related Articles

Back to top button