গসিপবিনোদনসিনেমা

আমির খানের লগন সিনেমার অভিনেত্রী ভুগছেন চরম অর্থসংকটে, অসময়ে ত্রাতা হলেন সোনু সুদ

গত দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে করোনা মহামারির জেরে কার্যত স্তব্ধ হয়ে রয়েছে জনজীবন। লকডাউনের জেরে কাজ হারিয়ে কার্যত দুর্বিসহ অবস্থার মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন একাধিক মানুষ। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি যার প্রভাব গিয়ে পড়েছে সেলিব্রেটিদের ওপরেও। সংক্রমণ কমলেও এখনও পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসেনি। যার জেরে একাধিক ক্ষেত্রে জারি রয়েছে কড়া বিধিনিষেধ। ব্যাতিক্রম নয় বিনোদন জগতও।

বর্তমানে কাজ হারিয়ে এমনই এক অসহায় অবস্থার মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন ‘লাগান’ (Lagaan) সিনেমা খ্যাত ‘কেশরিয়া’ (Kesariya) চরিত্রের অভিনেত্রী পারভীনা বানো (Parveena Bano) । বর্তমানে কাজ হারিয়ে অসুস্থ শরীর নিয়ে এক চরম আর্থিক সংকটের মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন অভিনেত্রী। জানা গেছে ২০১১ সালে ব্রেইন স্ট্রোক হয়েছিল অভিনেত্রীর । এরপর চিকিৎসার পিছনেই ধীরে ধীরে তাঁর সমস্ত সঞ্চয়ের টাকা খরচ হয়ে যায়।

সমস্ত সঞ্চয় খরচ হয়ে যাওয়ার পর এখন তাঁর হাতে না আছে চিকিৎসার খরচ জোগানোর টাকা না আছে ওষুধ আর খাবার কেনার টাকা। আমির খানের সুপারহিট সিনেমা ‘লাগান’ দিয়েই বলিউডে নিজের কেরিয়ার শুরু করেছিলেন পারভীনা। এরপর একাধিক সিনেমায় সাপোর্টিং রোলে অভিনয় করে নিজের পেশায় টিকে ছিলেন তিনি।কিন্তু অভিনেত্রী জানান ২০১১ সালে আচমকাই তাঁর ব্রেইন স্ট্রোক হয়।

তখন থেকেই তাঁর শারীরীক সমস্যা বাড়তে থাকে। পারভীনা জানান স্বামীর সাথে তাঁর ছাড়াছাড়ি হয়ে যাওয়ার পর থেকে তিনি তাঁর ছোট বোন এবং মেয়ের সাথে থাকতেন। সেসময় তিনিই ছিলেন সংসারের একমাত্র রোজগেরে মানুষ। তাই তাঁর উপার্জনেই চলত গোটা সংসার।পারভীনা জানান বিগত ৭-৮ বছরে তাঁর শরীর আগের থেকে আরও ভেঙে পড়তে থাকে। তাই দীর্ঘদিন ধরেই বাড়ি বসেই থাকতে হচ্ছে তাঁকে। কিন্তু পারভীনা জানান তাঁর বোন অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর হিসাবে কাজ করতেন। তাঁর উপার্জনেই টেনেটুনে সংসার চলত।

Sonu Sood

কিন্তু লকডাউনের জেরে তিনিও কাজ হারিয়েছেন। অন্যদিকে পারভীনা জানান এতদিন কাজ না পাওয়ার ভয়ে তিনি কাওকে তাঁর অসুস্থতার কথা জানাননি। সেইসাথে তাঁর অভিযোগ অনেকের কাছে সাহায্য চেয়েও লাভ হয়নি। কেউ খাদ্য সামগ্রী দিয়ে সাহায্য করলেও তা যথেষ্ট ছিল না। তবে পারভীনার চরম আর্থিক সংকটের কথা জানা মাত্রই তাঁর দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন গরীবের মসিহা সোনু সুদ। তিনি যথাসাধ্য চেষ্টা করছেন তাঁদের পাশে দাড়ানোর জন্য।

Related Articles

Back to top button