বিনোদন

কোয়েল মল্লিকের ফিরিয়ে দেওয়া প্রস্তাব লুফে নিয়ে বাজিমাত করেছিলেন কঙ্গনা রানাউত!

নিজেদের কেরিয়ারে বেশ সাফল্য কুড়িয়েছেন কোয়েল মল্লিক (Koel Mallick) এবং কঙ্গনা রানাউত (Kangna Ranaut)। বয়সের পার্থক্য ৫ বছরের, অভিনয় জগতে পা রাখার ক্ষেত্রেও পার্থক্য ৩ বছরের। তবু ২০০৬-এর এক ঘটনা দুই ভিন্ন প্রান্তের অভিনেত্রীকে এনে ফেলে এক জায়গায়। বলিউড (Bollywood) ও টলিউডের (Tollywood) দুই অভিনেত্রীর মধ্যে পার্থক্য রয়েছে বয়সে ও চিন্তাভাবনায়, পার্থক্য স্পষ্ট পরিচিতির ভিড়ে উঠে আসার লড়াইয়েও। তবু কোথাও একটা গিয়ে দুই মুখ যেন এক হয়ে যায়।

২০০৩ সালে ‘নাটের গুরু’-তে অভিনেতা জিৎ-এর সঙ্গে টলি-ইন্ডাস্ট্রিতে পথচলা শুরু কোয়েল মল্লিকের। যদিও রঞ্জিত মল্লিকের কন্যা হিসেবে কিন্তু খুব একটা ‘বিশেষ সুবিধা’ পাননি কোয়েল। ক্রমশ জিৎ-কোয়েল জুটির রসায়নে একের পর এক হিট হতে থাকে ‘বন্ধন’, ‘মানিক’ ও ‘হিরো’। এরপর ২০০৬-এ কোয়েলের ৫ টি ছবি মুক্তি পায়। একইসময়ে অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীর সঙ্গে ‘এম.এল.এ ফাটাকেষ্ট’ ছবিতে অভিনয় করে জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছে যান টলি-অভিনেত্রী।

অন্যদিকে কোয়েলের থেকে প্রায় ৫ বছরের ছোট কঙ্গনাও পা রাখেন বলিউডে। বহু বছরের তিক্ত অভিজ্ঞতা বুকে নিয়ে বলিউডে পা রাখার সময় তাঁর ঠাঁই হয় আদিত্য পাঞ্চোলির বাড়িতে। সেখানেও চলে লাঞ্ছনা ও যৌন নির্যাতন। সম্প্রতি সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর সময় জমে থাকা ক্ষোভই যেন উগড়ে দিয়েছিলেন তিনি। প্রাইভেট গাড়ি হোক বা জমকালো পার্টি, সবজায়গায় অবাধ যৌন লাঞ্ছনা সহ্য করতে করতেই যেন মানসিকভাবে অটুট হয়ে গিয়েছেন কঙ্গনা রানাউত। আর সেই অভিনেত্রী আজ বলিউডের ‘কুইন’। বলি-ক্যুইন প্রথম সুযোগ পান মহেশ ভাটের ‘গ্যাংস্টার’ ছবিতে। সেইসময় পরিচালক অনুরাগ বাসুর থেকে যেরকম আদর ও স্নেহ পেয়েছিলেন কঙ্গনা, তাও সর্বসমক্ষে স্বীকার করেন তিনি।

২০০৬ সালে ‘গ্যাংস্টার’ (Gangster) মুক্তি পাওয়ার সাথে সাথে তুমুল সাড়া পান কঙ্গনা রানাউত। যদিও সেসময়ের একটি ঘটনা শুনলে চমকে যাবেন প্রত্যেকেই। কোয়েল মল্লিক অফারটা ফিরিয়ে না দিলে হয়তো কঙ্গনার অভিনয় জীবনে ফেরাই হত না। বলিসূত্রে জানা যায়, বঙ্গতনয়া কোয়েল মল্লিকের কাছে প্রথমে মহেশ ভাট ‘গ্যাংস্টার’-এর অফার নিয়ে যান। যদিও অন্তরঙ্গ মুহূর্তের কারণে স্ক্রিপ্ট পছন্দ না হওয়ায় সেই ছবি ফিরিয়ে দিয়েছিলেন কোয়েল। আর এর ফলেই কঙ্গনার ভাগ্য সহায় হয়!

টলিউডের ট্রেন্ড দেখলে বোঝা যায় যে এখনকার বেপরোয়া টলিউড আর সেইসময়কার টলি-ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে ছিল আকাশপাতাল তফাৎ। তখনও পাশ্চাত্য সংস্কৃতি টলিউডে প্রবেশ করেনি, ফলে শর্ট ড্রেস বা অন্তর্বাস পরার দৃশ্য সেভাবে দেখানো হত না মূলধারার ছবিতে। অন্যদিকে সঠিক সময়ে ‘গ্যাংস্টার’-র মতো ছবিতে অভিনয় করে সঠিক পথে উত্থানের দিকে এগিয়ে যান কঙ্গনা। বর্তমানে ‘মণিকর্ণিকা’, ‘কুইন’-এর মত ছবিতে বক্সঅফিস হিট করছেন কঙ্গনা। যদিও বাংলার কোয়েলও কম যান না কোনো অংশেই। বর্তমানে এক সন্তানের মা দীর্ঘ বিরতির পর আবার ফিরতে চলেছেন বড় পর্দায়। দেখার এটাই যে, রুপোলি পর্দায় কি সেই আগের গ্ল্যামার ধরে রাখতে পারবেন তিনি?

Related Articles

Back to top button