গানবিনোদনভাইরালভিডিও

নিজেই বলেছিলেন, ‘হায়ে, মর যাউ ইয়েহি পে’! কেকের শেষ শোয়ের ভিডিও দেখে চোখে জল নেটিজেনদের

ছোট থেকে বড় হওয়ার সঙ্গী হিসাবে সুখ দুঃখের সঙ্গী হিসেবে যে কেকে’র (KK) গান সর্বদা পাশে ছিল, তিনি আর নেই। কলকাতায় এসেছিলেন লক্ষ লক্ষ অনুগামী ও শ্রোতাদের  জন্য গানের উপহার নিয়ে। অথচ সেই মঞ্চেই হাজারো শ্রোতাদের নিজের গানে মাতোয়ারা করে চলে গেলেন সুরের দেশে অনেক দূরে। যেন যেতে যেতেও নিজের অগণিত শ্রোতাদের জন্য রেখে গেলেন সুরের উপহার।

সোমবারই কলকাতায় এসেছিলেন গায়ক কেকে (Krishnakumar Kunnath)। গতকাল নজরুল মঞ্চে ছিল অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠান শেষে অসুস্থ বোধ করেন তিনি। হোটেলে গিয়ে আরও অবনতি হয়, পড়ে গিয়েছিলেন তিনি। তারপর হাসপাতালে নিয়ে গেলে জানা যায় যে আর নেই গায়ক। হটাৎ যেন একটা শূন্যতায় ভরে গেল চারিদিক। একটু আগেই যার গানে উল্লসিত হয়ে উঠেছিল গোটা একটা মঞ্চ ক্ষনিকের ব্যবধানে তিনি আর নেই। অনেকেই গায়কের মৃত্যুটা এখনও মেনে নিতে পারেননি।

ইতিমধ্যেই কেকের শেষ পারফর্মেন্সের একাধিক ভিডিও ভাইরাল হয়ে পড়েছে নেটপাড়ায়। সম্প্রতি আরও একটি ভিডিও  ভাইরাল হয়েছে যেখানে  ‘ওম শান্তি ওম’ সিনেমার ‘আখো মে তেরি’ গান গাইতে দেখা যাচ্ছে তাঁকে। আর সেই গানে দর্শকদের উচ্ছাসও চোখে পড়ার মত। এমনকি গানের শেষের দিকে কেকে নিজেই বলেছেন, ‘হায়ে, মর যাউ ইয়েহি পে’।

গায়কের সেই কথা যে সত্যিই হয়ে যাবে, সত্যিই তিনি সকলকে ছেড়ে অনেক অনেকটা দূরে চলে যাবেন এটা কেউই ভাবতে পারেনি। কারণ আরও কতশত ভালো গান উপহার পাওয়া বাকি ছিল তাঁর থেকে। মঙ্গলবারের অনুষ্ঠানে মোট ২০টি গান করার কথা ছিল তাঁর। সেই মত তালিকাও তৈরী করে রেখেছিলেন। তবে শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে এভাবে গান গেয়ে শেষের পথযাত্রী হবেন তিনি সেটা কেউ স্বপ্নেও ভাবতে পারেনি।

প্রসঙ্গত, জানা যাচ্ছে যে নজরুল মঞ্চে অনুষ্টান চলাকালীন নাকি অগ্নি নির্বাপক যন্ত্রের থেকে গ্যাস ছড়ানো হয়েছিল। থিকথিকে ভিড়ে ভর্তি মঞ্চের মধ্যে ওই গ্যাসের জেরেও হয়তো অস্বস্তিতে পরে গিয়েছিলেন গায়ক। এছাড়াও তাঁর শরীরের বেশ কিছু আঘাতের মত চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। ইতিমধ্যেই কলকাতা পুলিশ অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা দায়ের করেছে ও তদন্ত শুরু করেছে।

Related Articles

Back to top button