খবরবিনোদন

নেপোটিজম নিয়ে কটাক্ষ শুনে শুনে বিরক্ত, বাধ্য হয়ে জীবনের বড় সিদ্ধান্ত নিয়ে নিলেন করণ জোহর

নেপোটিজম কাঁটায় বরাবরই বিদ্ধ হয়েছে বলিউড। তবে সবচেয়ে বেশি যে ব্যক্তিকে এই নিয়ে কথা শুনতে হয়েছে তিনি হলেন করণ জোহর (Karan Johar)। ধর্মা প্রোডাকশন হাউসের কর্ণধারকে স্টারকিডদের লঞ্চ করা নিয়ে কম কথা শুনতে হয়নি। অনুষ্ঠান থেকে শুরু করে সোশ্যাল মিডিয়া, করণকে এই নিয়ে বহু জায়গায় কটু কথা শুনতে হয়েছে।

তবে এবার বলিউডের এই নামী প্রযোজক-পরিচালকের সহ্যের সীমা অতিক্রম করে গিয়েছে। তাই এবার এক প্রকার বাধ্য হয়েই জীবনের অত্যন্ত বড় একটি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললেন। করণের এই সিদ্ধান্ত হতবাক করে দিয়েছেন তাঁর অগণিত ভক্তদের।

Karan Johar in Koffee With Karan

সোমবার, সপ্তাহের শুরুর দিনেই সকলকে চমকে দিয়ে নিজের সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন করণ। ধর্মা কর্ণধার আজ জানান, তিনি পাকাপাকিভাবে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম টুইটার (Twitter) থেকে বিদায় নিচ্ছেন। করণ টুইট করে একথা জানানোর পরই বিদায় (Quits) নেন টুইটার থেকে।

করণ আজ টুইটারে লেখেন, ‘শুধুমাত্র ইতিবাচক শক্তির জন্যই জায়গা করছি এবং এটি সেই দিকেই নেওয়া একটি পদক্ষেপ। চিরবিদায় টুইটার’। ‘কভি খুশি কভি গম’ সহ একাধিক ব্লকবাস্টার ছবির নির্মাতা করণ সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করতে ঠিক কতখানি ভালোবাসেন তা কারোর অজানা নয়, তাই এবার তিনিই সকলকে চমকে টুইটার থেকে বিদায় নেওয়ায় সকলের অনুমান বড় কিছুই হয়তো হয়েছে, সেই কারণে এত বড় পদক্ষেপ নিয়েছেন তিনি।

Karan Johar quits twitter

টুইটার থেকে চিরবিদায় নেওয়ার কথা জানালেন করণ কিন্তু একথা খোলসা করেননি তিনি কেন টুইটার থেকে বিদায় নিয়েছেন। একই প্রশ্ন ঘুরছে তাঁর ১৭.২ মিলিয়ন অনুরাগীর মনেও। জানিয়ে রাখি, করণ এমন একজন ব্যক্তি যিনি টুইটারে মাধ্যমে শুধু নিজের ছবির প্রচারই নয়, অনুরাগীদের সঙ্গে যোগাযোগও রাখতেন এবং সেই সঙ্গে ট্রোলদেরও কড়া জীবন দিতেন।

Karan Johar

সম্প্রতি টুইটারে এক নেটিজেনের সঙ্গে ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ নিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন করণ। গুগল ম্যাপের মাধ্যমে ‘ব্রহ্মাংশ’ খোঁজা নিয়ে নির্মাতাদের একহাত নিয়েছিলেন একজন নেটিজেন। তাঁকে কড়া জবাব দিয়ে মুখ বন্ধ করে দেন করণ। তবে এবার আর টুইটারে দেখা যাবে না তাঁকে। শুধুমাত্র ইনস্টাগ্রামেই দেখা যাবে ধর্মা কর্ণধারকে।

Related Articles

Back to top button