খবরগসিপবিনোদনসিনেমা

মারা যাবার আগেই নমিনি বদল! রিয়ার দিকে অভিযোগের আঙ্গুল, সুশান্ত তদন্তের দাবিতে উত্তাল নেটপাড়া

বলিউডের অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত প্রয়াত হয়েছেন এক বছরেরও বেশি হয়ে গেল। একজন প্রতিভাবান অভিনেতার এই ধরনের আকস্মিক মৃত্যু মেনে নিতে পারেনি লক্ষ লক্ষ ভক্তরা। গত বছরের 14 ই জুন নিজের মুম্বাইয়ে ফ্ল্যাটেই নাকি আত্মহত্যা করেছিলেন সুশান্ত। তবে সত্যিই কি আত্মহত্যা করেছিলেন নাকি খুন করা হয়েছিল তাঁকে এই নিয়ে তোলপাড় হয়ে গেছিল সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে সংবাদমাধ্যম সর্বত্র।

সুশান্তের মৃত্যুর নিরপেক্ষ এবং দ্রুত তদন্তের দাবিতে জাস্টিস ফর সুশান্ত ট্রেনে চলে আসে গোটা বিশ্বের সোশ্যাল মিডিয়াতে। এরপর শুরু হয় পুলিশি তদন্ত যতই তদন্তে গিয়ে ছেড়ে বেরিয়ে এসেছে নানা রহস্য। বলিউডের ড্রাগসের রমরমা ব্যবসা থেকে শুরু করে নানা তথ্য উঠে এসেছে তদন্তের মধ্যে দিয়ে। তদন্তে পাওয়া প্রতিটা তথ্য জানা আরও জটিল করে তুলেছিল সুশান্তের মৃত্যু রহস্য।

আজ একটা বছরের বেশি পেরিয়ে গেলেও ঠিক কি কারণে মৃত্যু হয়েছিল এমন একজন প্রতিভাবান অভিনেতার আজও অজানাই রয়ে গেছে। সুশান্তের মৃত্যুর পরে পরেই অভিযোগের আঙুল উঠেছিল তার বান্ধবী তথা প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর দিকে। রিয়ার মতে মানসিক অবসাদগ্রস্ত ছিলেন সুশান্ত। যদিও ঠিক কী কারণে মানসিক অবসাদগ্রস্ত ছিলেন বা কোন চাপে পড়ে এই ধরনের একটা গুরুতর সিদ্ধান্ত নিলেন সুশান্ত সেটা এখনো স্পষ্ট নয়।

আশ্চর্যজনক ব্যাপার হলো মৃত্যুর কিছুদিন আগে নিজের ব্যাংক একাউন্টের নমিনি রিয়া চক্রবর্তী থেকে বদলে নিজের দিদি শ্বেতাকে করে দিয়েছিল সুশান্ত। তাহলে কি সুশান্ত আগেই কিছু বুঝতে পেরেছিল? এ প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। যদিও এই রহস্যের উদ্ঘাটন বা সুরাহা কোনটাই আজ অব্দি হয়নি। কোটি কোটি ভক্তগণেরা দিন গুনছেন সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত শেষ হবার আশায়।

গতবছর ব্যাপকভাবে আন্দোলন হলেও এবছর সুশান্তের জন্য বিচার চাওয়া অনেকটাই কমে গিয়েছিল। তবে সম্প্রতি রাখি বন্ধন উপলক্ষে সুশান্তের দিদি শ্বেতা ভাইয়ের একটি পুরনো ছবি শেয়ার করেছিল। এরপর থেকেই নেটপাড়ায় আবারও ট্রেন্ডিং হতে শুরু করেছে জাস্টিস ফর সুশান্ত। শুধু তাই নয় সাথে রয়েছে রিয়া চক্রবর্তীকে গ্রেফতারের দাবি। কারণ নেটিজেনদের অনেকেরই ধারণা যদি কিছু নাই হয়ে থাকে তাহলে হঠাৎ কেন নিজের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের নমিনি বদল করে দেবেন সুশান্ত! হয়তো আগে থেকে বুঝতে পেরেই এমন একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি।

Related Articles

Back to top button