গসিপবিনোদন

আমার অনেক বয়ফ্রেন্ড, বরের ও অনেক বান্ধবী আছে! ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে অকপট ইন্দ্রাণী হালদার

টলিউডের সিনিয়র অভিনেত্রীদের মধ্যে একজন ইন্দ্রাণী হালদার (Indrani Halder)। এক সময় বড় পর্দায় দাপিয়ে কাজ করেছেন অভিনেত্রী আর তারপর গোয়েন্দা গিন্নি আর শ্রীময়ীর দৌলতে তিনি ছোট পর্দাতেও সমান জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। প্রায় কয়েক বছর ধরে টানা চলার পর সম্প্রতি শেষ হয়েছে শ্রীময়ী ধারাবাহিক। শোনা গিয়েছিল, এরপর ফের গোয়েন্দা গিন্নি পার্ট টু হয়ে ছোট পর্দায় ফিরবেন অভিনেত্রী, কিন্তু চ্যানেলের তরফে আর কোনোও রকম উচ্চবাচ্য করা হয়নি বলেই জানিয়েছেন ইন্দ্রাণী হালদার।

অনেক ছোট থেকেই বিনোদন জগতের সাথে যুক্ত অভিনেত্রী। ১৯৭১ সালের ৬ জানুয়ারি কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন ইন্দ্রাণী অনেকে তাকে মামণি নামেও চেনে। যোগমায়া দেবী কলেজ থেকে স্নাতক পাশ করার পর, অভিনেত্রী দীর্ঘদিন ক্লাসিকাল নৃত্য শেখেন থাঙ্কুমনি কুট্টি’র কাছে। শিশু শিল্পী হিসেবে তেরো পার্বণ সিরিয়াল দিয়েই অভিনয়ে অভিষেক ঘটে তার।

Sreemoyee actress Indrani Haldar will soon act on tollywood films শ্রীময়ী অভিনেত্রী ইন্দ্রানী হালদার

ইন্দ্রাণী হালদারের প্রতি তাই ইন্ডাস্ট্রির সকলেরই শ্রদ্ধা অপরিসীম। প্রথমত তিনি একজন প্রতিষ্ঠিত অভিনেত্রী আর তা ছাড়াও অসংখ্য ভালো ভালো পরিচালকদের সাথে কাজ করেছেন তিনি। তবে আজ আমাদের আলোচনা তাঁর পেশাগত জীবন নিয়ে নয়, বরং আপনাদের জানাব সম্প্রতি সংবাদ মাধ্যমের কাছে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে তিনি কী বলেছেন।

এই সাক্ষাৎকারে কার্যত বিস্ফোরক দাবি করেছেন পর্দার শ্রীময়ী। তাঁর বক্তব্য, নতুন বছরে তিনি প্রতিজ্ঞা করেছেন বারংবার প্রেমে পড়বেন তিনি। এমনকি আঘাত পেলেও পিছু হঠার পাত্রী নন তিনি৷ একজন গেলে ফের আরেকজনের প্রেমে পড়বেন। এমনকী তিনি আরও জানিয়েছেন তার স্বামীরও অসংখ্য বান্ধবী রয়েছে। কিন্তু এত কিছুর পরেও একটা সম্পর্কে যেটা সবচেয়ে বেশি দরকার তা হল বোঝাপড়া, এবং স্বামীর সাথে এই ব্যাপারে তিনি এক্কেবারে পরিস্কার।

তিনি বেশ গম্ভীরভাবেই একথা জানিয়েছেন কোনোও বয়ফ্রেন্ডের সাথে ব্রেকাপ হলে তার স্বামীই ইন্দ্রানীর চোখের জল মুছিয়ে দেন। তবে এই বয়সে তিনি প্রেম করলে বুদ্ধিদীপ্ত, স্মার্ট ছেলের সাথেই করবেন। এই প্রেমের অনুপ্রেরণা নাকি তার বাবার থেকেই পাওয়া৷ তবে তার এই অকপট স্বীকারোক্তিতে হইচই পড়ে গিয়েছে নেটপাড়ায়।

Related Articles

Back to top button