বিনোদনসিনেমা

বাঙালি হলেও বাংলাটা ঠিক আসে না! ‘ফেলুদা’ হওয়ার জন্য পড়াশোনা শুরু করলেন ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত

অনেকদিন ধরেই দর্শকরা সন্দীপ রায়ের নতুন ফেলুদা ছবির জন্য অপেক্ষা করছিলেন। অবশেষে বুধবার শহর কলকাতার এক নামী রেস্তোরাঁয় ‘হত্যপুরী’ (Hattyapuri) ছবির প্রথম পোস্টার প্রকাশ করলেন সত্যজিৎ-পুত্র। এদিন পোস্টারটি আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করেন সন্দীপ-পত্নী ললিতা রায়। সন্দীপের আগামী ছবিতে ফেলুদার ভূমিকায় অভিনয় করবেন ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত (Indraneil Sengupta)।

সন্দীপের (Sandip Ray) আসন্ন ছবিতে ফেলুদা হিসেবে ইন্ডাস্ট্রির বহু তাবড় তাবড় অভিনেতার নাম শোনা গিয়েছিল। শেষ পর্যন্ত ইন্দ্রনীলকেই বেছে নেন পরিচালক। এদিন ফেলুদার লুকে দেখা যায় তাঁকে। ইন্দ্রনীলের পরনে ছিল খাদির পাঞ্জাবি, চোখে কালো ফ্রেমের চশমা। পরনে-চলনে সত্যজিৎ’এর ফেলুদা হয়ে ওঠার চেষ্টা করেছেন তিনি। ইন্দ্রনীল জানান, তাঁর সবচেয়ে প্রিয় গোয়েন্দা চরিত্রও ফেলুদা। তাই এই চরিত্রে অভিনয়ের ব্যাপারে প্রচণ্ড আত্মবিশ্বাসী তিনি। তবে এক্ষেত্রে বাধা হয়েছে ভাষাগত সমস্যা।

Sandip Ray,Indraneil Sengupta,Indraneil Sengupta On His Bengali,Hattyapuri,Tollywood,Entertainment,Hatyapuri,সন্দীপ রায়,ফেলুদা,ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত,ইন্দ্রনীল সেনগুপ্তের বাংলা,হত্যপুরী,টলিউড,বিনোদন

পর্দার ফেলুদা হয়ে উঠতে সিগারেটের অভ্যাস ছাড়তে পারেননি ইন্দ্রনীল। সত্যান্বেষী যেহেতু ভালো রকমেরই ধূমপান করতেন, সেই কারণে তিনিও ধূমপান ছাড়তে পারেননি। স্বপ্নের চরিত্রের জন্য বাংলা ভাষাও ভালো করে রপ্ত করতে হচ্ছে অভিনেতাকে। এই জন্য দীর্ঘদিন প্রবাসে থাকা এই অভিনেতা ইংরেজি সিনেমা দেখা থেকে বই পড়া- সবকিছু ত্যাগ করেছেন।

ইন্দ্রনীলের কথায়, ‘এই চরিত্রটির জন্য আমায় ভালো করে বাংলা বলা শিখতে হচ্ছে। বিদেশে থাকার কারণে অনেকটা সময় হয়ে গিয়েছে বাংলা বলার অভ্যাস নেই। আমি ইংরেজি বই পড়ি। ভাবনাচিন্তাও ওই ভাষাতেই করি। সেই কারণে বাংলা ভাষাকে যতটা সম্ভব আয়ত্তে আনার চেষ্টা করছি। বাংলা ভাষাকে আয়ত্তে আনার জন্য ইংরেজি সিনেমা দেখা, বই পড়া একেবারে কমিয়ে দিয়েছি’।

Sandip Ray and Indraneil Sengupta

সন্দীপের আসন্ন ফেলুদা ছবিতে ইন্দ্রনীলের পাশাপাশি থাকবেন অভিজিৎ গুহ এবং আয়ুশ। এই দুই অভিনেতা যথাক্রমে জটায়ু এবং তোপসের ভূমিকায় অভিনয় করবেন। ‘হত্যপুরী’ ছবিটির মুক্তির তারিখ নিয়ে এক সময় ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছিল। ছবিটি নিয়ে এসভিএফের সঙ্গে কথাবার্তা অনেকটা এগোলেও শেষ পর্যন্ত ছবিটি প্রযোজনা না করার সিদ্ধান্ত নেয় সেই সংস্থা। তবে সেই সব ধাক্কা কাটিয়ে শ্যাডো ফিল্মসের প্রযোজনায় নির্ধারিত সময়ে মুক্তি পাবে সন্দীপ রায়ের ছবি।

Related Articles

Back to top button