গানবিনোদনভাইরাল

রবীন্দ্রনাথ বেঁচে থাকলে সুসাইড করতেন! হিরো আলমের রবীন্দ্রসঙ্গীত শুনে তীব্র কটাক্ষ নেটিজেনদের

বাংলদেশের অভিনেতা হিরো আলম (Hero Alam)। যার আসল নাম আশরাফুল আলম হলেও হিরো আলম নামেই তিনি বেশি পরিচিত। ফেসবুক থেকে ইউটিউব সর্বত্রই তিনি রয়েছেন। নিজেই চলচ্চিত্র পরিচালনা থেকে শুরু করে গান গাওয়া এমনকি সিনেমায় অভিনয় সবটাই করেন আর সেই সব শেয়ার করেন সোশ্যাল মিডিয়াতে। কিন্তু এসব করে প্রশংসার বদলে ট্রোল বা কটাক্ষই বেশি পাওনা হয় তাঁর। সম্প্রতি আবারও এমনই ঘটনা ঘটল গায়ক হিরো আলমের সাথে।

সিনেমা তৈরী থেকে পরিচালনা এমনকি গান সবটাই শখে করেন তিনি মানুষের বিনোদনের স্বার্থে। একথা আগেই বলে রেখেছেন তিনি। এর আগে পুষ্পা ছবির শ্রীভাল্লি থেকে টাইটানিকের গান গেয়ে শুনিয়েছিলেন তিনি। সেই গান শুনে নেটিজেনদের কটাক্ষে ভরে গিয়েছিল কমেন্ট বক্স। তবে তাতে হাল ছাড়েননি আলম। বরং কিছুদিন পর রানু মন্ডল ও ভুবন বাদ্যকর দুই ভাইরাল শিল্পীর সাথে জুটি বাঁধতে দেখা গিয়েছিল তাকে।

Hero Alom chumbak line post viral on social media

তবে এবার সোজা রবীন্দ্রসঙ্গীত (Rabindra Sangeet) এর সাধনা করতে দেখা গেল তাকে! সম্প্রতি হিরো আলমের গলায় রবীন্দ্র সঙ্গীতের ভিডিও সর্বত্র ছেয়ে গিয়েছে। আর সেই গান শুনেই ক্ষেপে লাল হয়ে গিয়েছেন নেটিজেনরা। ভিডিও এর শুরুতেই দেখা যাচ্ছে রবীন্দ্রনাথের ‘আমারও পরাণ যাহা চায়, তুমি তাই তুমি তাই গো’ গাইছেন তিনি। এরপর ‘আমি শুনেছি সে দিন তুমি’ গানটি গেয়ে শুনিয়েছেন তিনি।

অনেকের মতেই, ‘গানটার ‘ধর্ষণ’ করে দিলেন হিরো আলম’। তো কেউ বলেছেন, ‘রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বেঁচে থাকলে এই গান শুনেই সুইসাইড করতেন।’ এমন হাজারো কটাক্ষ দেখা গিয়েছে তার ভিডিওর কমেন্ট বক্সে। তবে তিনি ভিডিওর মধ্যে নিজেই বলেছেন, ‘আমি কোনো গায়ক বা শিল্পী নই। আমি শিল্পী হওয়ার দাবিও করিনি আর করছিলো না। তবে আমি  যেটা করি সেটা শুধুমাত্র মানুষকে বিনোদন দেওয়ার জন্য করি’।

এরপর আলম বলেন, ‘আমি একজন বাঙালি, তাই সবার মত আমারও রবীন্দ্রসঙ্গীত গাওয়ার অধিকার রয়েছে। আমি আমার মত করেই চেষ্টা করছি, ভুলত্রুটি হল এখোমার করবেন। আর রবীন্দ্রনাথের গান আমারও খুবই পছন্দের। তাই আমি রবীন্দ্রসঙ্গীত গাওয়ার চেষ্টা করেছি। আর আমার অনুরাগীদের উপহার দিতে চেয়েছি’।

 

Related Articles

Back to top button