বিনোদন

কালীঘাট দর্শন করে বিয়ের ১০ বছর পর গুরমীতের সাথেই বাঙালি মতে সাত পাকে বাঁধা পড়লেন দেবিনা!

লাল বেনারসি, সোনার গহনা, ফুলের সাজে নব বধূর রূপে দেবিনা (Debina) আর তার পাশে ধুতি পাঞ্জাবিতে গুরমীত (Gurmeet)। কি অবাক হচ্ছেন তো? ১০ বছর আগে বিবাহিত দম্পতি আবার কেন হঠাৎ বিয়ের সাজ সাজতে গেল? অবশ্য অভিনেতা অভিনেত্রীদের জীবনে পর্দায় বিয়ে তো আকছার হয়, কিন্তু দেবীনা গুরমীতের এই বিয়েটা সাজানো নয়।

২০১১ সালে আজ থেকে ঠিক ১০ বছর আগে তরিঘরি মন্দিরেই বিয়ে সেরেছিলেন দেবীনা গুরমীত। কিন্তু আদ্যপ্রান্ত বাঙালি, শোভাবাজারের খাঁটি উত্তর কলকাতার মেয়ে দেবিনার কি আর তাতে মন ভরে? অবাঙালি বর হলেও বিয়ে বাঙালি মতেই হওয়া চাই, এই ছিল বঙ্গ তনয়ার আবদার।

বিয়ের ১০ বছর পরে সেই ইচ্ছে পূরণ হল দেবিনার। কলকাতা এসে এক্কেবারে বাঙালি রীতি নিয়ম মেনে ফের গুরমীত চৌধুরীর সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধলেন দেবিনা। প্রথমে কলকাতায় কালীঘাটে পুজো দিয়ে, মাটির ভাঁড়ে চা খেয়ে চুটিয়ে ঘুরেছেন তিলোত্তমার অলিতে গলিতে। আর তারপরেই মাথায় টোপর, ধুতি-পাঞ্জাবি পরে গুরমীত একেবারেই বাঙালি বর। অন্যদিকে লাল বেনারসিতে সাজলেন দেবিনা। বাঙালি রীতি মেনেই সাত পাকে বাঁধা পড়লেন টেলিভিশনের রাম-সীতা!

আজকাল এই বিয়ে ভাঙার যুগে গত ১০ বছর ধরে তাদের অটুট প্রেমের সম্পর্ক যেন উদাহরণ হয়ে উঠেছে৷ এত বছর পরেও তাদের সম্পর্ক বিন্দুমাত্র চিড় ধরেনি। বরং দ্বিতীয় বার বিয়ের পিঁড়িতে বসেও বেজায় খুশি দেবিনা।

দেবিনা জানিয়েছেন, ‘আমি আর গুরমীত দু’ জনেই চেয়েছিলাম বাঙালি মতে বিয়ে করতে। আইনি বিয়ের ১০ বছর পর ফের এভাবে বিয়ে করাটা একেবারে আমাদের কাছে স্বপ্নপূরণ।’ ২০০৬ থেকে গুরমীত ও দেবিনার প্রেমপর্ব শুরু। বড় পর্দায়ও কাজ করেছেন গুরমিত। ধারাবাহিক এবং রিয়ালিটি শো-তে একসঙ্গে কাজ করেছেন এই তারকা দম্পতি।

Related Articles

Back to top button