খবরবিনোদনসিরিয়াল

শুট ফ্রম হোমের জন্য মেকআপ, জামাকাপড় আসছে কোথা থেকে! উত্তর চাইছে আর্টিস্ট ফোরাম

লকডাউনের জেরে বন্ধ টলিপাড়ায় শুটিং। সিনেমা থেকে শুরু করে সিরিয়াল (Serial) সবই বন্ধ রয়েছে। এদিকে সিরিয়ালের ব্যাঙ্কিং করে রাখ পর্ব শেষ  হয়ে গিয়েছে অনেক আগেই। তাই এবার বাড়ি  থেকেই শুটিং করে কাজ চালানো হচ্ছে সিরিয়ালগুলিতে। কিন্তু ফেডারেশনের মতে লকডাউনের আইন অমান্য করেই চলছে শুটিং। কোথাও বার ভাড়া করে তো কোথাও হোটেল বা গুদাম ভাড়া করে চলছে শুটিং। এই নিয়ে বিতর্ক চলছেই।

সিরিয়ালের পরিচালকদের  অবশ্য দাবি সমস্ত নিয়ম মেনে বাড়ি থেকেই করা হচ্ছে শুটিং। এবার এই বিতর্কের মাঝেই নতুন প্রশ্ন ছুড়ে দিল আর্টিস্ট ফোরাম। সোমবার আর্টিস্ট ফোরামের তরফে একটি সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল। যেখানে  বেশ কিছু সিরিয়ালের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে, যে তার ফোরামের নির্দেশনা না মেনেই কাজ করছে বার থেকে।

Serial Shooting from Home

মূলত কৃষ্ণকলি, খড়কুটো, শ্রীময়ী, খেলাঘর ইত্যাদি সহ মোট ২০টি সিরিয়ালের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ আনা হয়েছে। ফোরামের মতে এই সিরিয়ালগুলো নিয়ম অমান্য করেই কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। শুধু তাই নয় এর জন্য সিরিয়ালের প্রযোজকদের থেকে নানা ধরণের সাহায্যও পাচ্ছে। এপ্রসঙ্গে ক্যামেরা, মেকআপ ও সিরিয়ালের শুটিংয়ের জন্য প্রয়োজনীয় পোশাক কোথা থেকে আসছে জানতে চাইল ফোরাম।

তাছাড়া টেকনিশিয়ান ফেডারেশনের মতে বাড়ি থেকে শুটিং হওয়ার দরুন সিরিয়ালের ভিডিও এর মান অনেকটাই নেমেছে।  অথচ এডিটর হিসাবে যাদের নাম দেখানো হচ্ছে তারা কাজ না করেই তাদের নাম দেখানো হচ্ছে। যেটা একেবারেই অনুচিত। তাছাড়া যেসমস্ত অভিনেতা অভিনেত্রীরা মাসিক চুক্তিতে কাজ করেন তাদের জন্য প্রযোজকরা অর্থ সাহায্যের কথা বলেছেন।

যার অর্থ কাজ না করতে পারলেও তাদের টাকা দেওয়া হবে। কিন্তু সেক্ষেত্রে যারা প্রতিদিনের মজুরিতে কাজ করতেন তাদের কি হবে! এমন অনেক অভিনেতা অভিনেত্রীরা রয়েছেন যারা দৈনিক চুক্তিতে কাজ করেন। তাদের জন্য কোনো কিছুই বলা হয়নি। তাদের জন্যই বা কি ব্যবস্থা নিয়েছে আর্টিস্ট ফোরাম। এই ধরণের প্রশ্নের উত্তর চাওয়া হয়েছে ফেডারেশনের পক্ষ থেকে।

Related Articles

Back to top button