বিনোদন

ভুয়ো টীকা! কসবায় ভ্যাক্সিন নিয়ে ‘ঠকলেন’ খোদ অভিনেত্রী সাংসদ মিমি চক্রবর্তী

ভ্যাক্সিন (Vaccine) নিয়ে সারা রাজ্য জুড়েই চলছে হাহাকার। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার পর খুব শিগগিরই নাকি হানা দেবে তৃতীয় ঢেউ। দিন কয়েক আগেই সকলের জন্য বিনামূল্যে ভ্যাকসিনের ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।  তবু বিভিন্ন জায়গায় প্রাইভেটেও টিকা নেওয়া যাচ্ছে। এরমধ্যেই কসবায় ১০৭ নম্বর ওয়ার্ডে আয়োজিত একটি টিকাকরণের শিবির থেকে এদিন করোনা টীকার প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন সাংসদ অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী (Mimi Chakraborty) ।

কিন্তু পরে অভিনেত্রী জানতে পারেন, কলকাতা পুরোসভার কোনো রকম অনুমতি না নিয়েই এই শিবির চালিয়ে যাচ্ছিলেন আয়োজকরা। ইতিমধ্যেই এই ঘটনার জেরে এক ভুয়ো আমলাকে গ্রেফতারও
করা হয়েছেন কলকাতা পুলিশের (Kolkata Police) এর তরফে।

এই প্রসঙ্গে সাংসদ অভিনেত্রী জানান, “টীকা নেওয়ার পর থেকে ফোনে কোনো মেসেজ আসেনি। তখন থেকেই সন্দেহ শুরু হয়। শিবিরে গিয়ে সার্টিফিকেট চাইলেও বলা হয় তিন চারদিন পর সার্টিফিকেট পাওয়া যাবে। এরপরেই পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করি”।

পুলিশ সূত্রে খবর, মঙ্গলবার কসবার ১০৭ নম্বর ওয়ার্ডে একটি টিকাকরণ শিবির চলছিল। অভিযোগ, তাতেই উপস্থিত ছিল দেবাঞ্জন দেব নামে এক ব্যক্তি। সে নিজেকে আইএএস (IAS) বলে পরিচয় দেয়। এছাড়াও ক্যাম্পে দাঁড়িয়েছিল নীল বাতি লাগানো কলকাতা পুরসভার গাড়ি। এই পুরো ঘটনাই সন্দেহজনক ঠেকায় ঘটনাস্থল থেকে দেবাঞ্জন দেবকে আটক করে পুলিশ, রাতভর জিজ্ঞাসাবাদ ও করা হয় তাকে।

পরবর্তীতে জানা যায় ভুয়ো পরিচয় দিয়ে টীকাকরণের শিবির চালাচ্ছিলেন তিনি। প্রসঙ্গত, জুন মাস ধরে সমস্ত লিঙ্গর সমানাধিকরণের দাবি নিয়ে পালিত হচ্ছে প্রাইড মানথ। সেই টিকাকরণ শিবিরেই মঙ্গলবার তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের সঙ্গে কোভিড টিকার (Covid Vaccine) প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন মিমি। সেই কারণেই ভ্যাকসিনের সমানাধিকারের কথাও জানিয়েছিলেন যাদবপুরের সাংসদ। কিন্তু পরে জানা যায় সবটাই ছিল ভুয়ো।

Related Articles

Back to top button