বিনোদনসিরিয়াল

‘এই পথ যদি না শেষ হয়’- এ নয়া মোড়! ভগবানকে সাক্ষী রেখে উর্মিকে সিঁদূর পরালো সাত্যকি

বাঙালির বিনোদনের একটা বড় অংশই সিরিয়ালকে (Serial) ঘিরে। সন্ধ্যে নামলেই নানান সিরিয়ালের মধ্যে থেকে নিজের পছন্দের সিরিয়াল দেখতে হাজির হন সকলে। সিরিয়ালের প্রিয় চরিত্রদের না দেখলে যেন দিনটা অসম্পূর্ন থেকে যায়। দর্শকদের এক এক জনের পছন্দ এক এক ধরণের। কারণ রানী রাসমণি পছন্দ তো কারো আবার খুড়কুটো। তবে গত মার্চে একটি নতুন সিরিয়াল শুরু হয়েছিল যার নাম, ‘ এই পথ যদি না শেষ হয়’। তবে অল্প দিনের মধ্যেই এই ধারাবাহিক দর্শকদের মন জিতে নিয়েছে।

এমনকি টিআরপির দৌড়েও একটু একটু করে জায়গা করে নিচ্ছে এই ধারাবাহিকটি৷ উর্মি নামের এক বড়লোক ঘরের মেয়েকে নিয়েই গল্পের প্রেক্ষাপট। উর্মি অর্থাৎ সিরিয়ালের মূল চরিত্র নাচ, গান, আবৃত্তি, খেলাধুলা সমস্ত কিছুই শিখেছে কিন্তু একটু একটু। আর এবার তার ইচ্ছা গাড়ি চালানো শেখা। আর এই ট্যাক্সি চালানো শিখতে গিয়েই গল্পের নায়ক অর্থাৎ মধ্যবিত্ত পরিবারের ছাপোষা ছেলে সাত্যকির সাথে পরিচয় উর্মির। এবার হলুদ ট্যাক্সি চালানো শেখার মাঝে কিভাবে প্রেমের গাড়ি চলতে শুরু হয় সেটাই দেখতে দর্শকেরা চোখ রেখেছেন সিরিয়ালে।

সিরিয়ালের কাহিনীর শুরুতেই জানা যায় উর্মির বড়লোক বাড়িতে মানুষ হলেও যৌথ পরিবারের মজা খুব মিস করে সে। কারণ ঘুম থেকে উঠে সকলেই যে যার কাজে ব্যস্ত তাই বড় একা লাগে তার। একটিন উর্মির বাড়ি ফেরার পথে কিছু ছেলে পিছু নেয়। আর তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসে মধ্যবিত্ত পরিবারের ট্যাক্সি চালক সাত্যকি। তাদের পথ চলা শুরু হয় সাত্যকির হাতে উর্মির গাড়ি চালানো শেখার মধ্যে দিয়েই।

এরপরেই উর্মি সাত্যকির রসায়ন ধীরে ধীরে মন জয় করে নিতে থাকে দর্শকদের। লকডাউনের কারণে সিরিয়ালে সপ্তাহ দুয়েকের বিরতি থাকলেও, এক্কেবারে নয়া চমক নিয়ে ফিরছে ‘এই পথ যদি না শেষ হয় ‘ ধারাবাহিক। সাম্প্রতিক প্রোমোতে দেখা যাচ্ছে, মন্দিরে ভগবানকে সাক্ষী রেখে ঊর্মিকে সিঁদূর পরিয়ে দিল সাত্যকি। ঊর্মির বুদ্ধিতেই যে এই গোটা ঘটনা ঘটেছে তার ও আভাস মিলল প্রোমোতে।

 

তবে ঊর্মির পরিবার যখন এই বিয়ে মানতে নারাজ, তখন সাত্যকীর পরিবার এই ‘নকল’ বিয়ে বাঁচাতে কিন্তু মরিয়া। কিন্তু এখন দেখার, এই নকল বিয়ে ঠিক কী কী ঘটনা বয়ে আনে। কিন্তু বিরতির পরেই এত্তবড় চমক? এই প্রসঙ্গে ঊর্মি ওরফে অন্বেষা জানান, ‘‘ঊর্মি ভীষণ ফিল্মি। সিনেমার পোকা। ছোট থেকে জীবনটাকে সিনেমা মনে করে। তাই গুন্ডারা তাড়া করতেই নিজেকে বাঁচাতে সাত্যকির হাত থেকে সিঁদুর পরে নিল।’’

Related Articles

Back to top button