বিনোদনভিডিওসিরিয়াল

এক ঝটকায় ওলট-পালট উর্মির সাত্যকির জীবন! টুকাইবাবুকে জেলে ফেলেই দাদুর কাছে দৌড়াল উর্মি

সিরিয়ালপ্রেমী দর্শকদের কাছে অত্যন্ত পছন্দের একটি সিরিয়াল হল জি বাংলার এই পথ যদি না শেষ হয় (Ei Poth Jodi Na Sesh Na Hoi)। নতুন বছরের শুরুতেই সরকার বাড়িতে এসেছে নতুন ঝড়। সেই ঝড়ে একেবারে ওলটপালট হয়ে গিয়েছে উর্মি (Urmi) সাত্যকির (Satyaki) জীবন। এক ধাক্কায় নড়বড়ে হয়ে গিয়েছে তাদের সম্পর্কের বাঁধন।

সব ঠিক থাকলে বিয়ের ৫ মাসের পূর্তি উপলক্ষে সেলিব্রেশনে মেতে ওঠার কথা ছিল উর্মি সাত্যকির। কিন্তু তার আগেই সরকার বাড়ি এসে হাজির হয় পুলিশ। বাড়ির আদর্শবান ছেলে সাত্যকির বিরুদ্ধে উঠেছে গুরুতর অভিযোগ। এক মহিলার কাছে শ্লীলতাহানির অভিযোগ পেয়ে সাত্যকিকে বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায় পুলিশ।

আসলে গোটা ঘটনাটাই উর্মির ছোট কাকা আর মামনির সাজানো। উর্মির চোখে সাত্যকিকে ছোটো করতে তার নামে শ্লীলতাহানির মতো জঘন্য ষড়যন্ত্র করে উর্মির মামনি। তাদের কথাতেই ভুয়ো নির্যাতিতা সেজে ওই মহিলা নিজেই নিজের পোশাক ছিঁড়ে থানায় গিয়ে হাজির হয়।

পুলিশের কাছে সাত্যকির বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ শুনে উর্মিও তাকে অবিশ্বাস করতে শুরু করে। সে কিছুতেই বুঝতে পারছে না তার সাত্যকিবাবু তাকে সেদিন মিথ্যে কেন বলল। তাই রাগি আন্টি সহ বাড়ির কারো কথার তোয়াক্কা না করে সাত্যকি বাবুকে থানায় একা রেখেই দাদুর কাছে চলে যায় উর্মি।

উর্মির এই ব্যবহারে খুব কষ্ট পেয়েছেন তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন। এই পরিস্থিতিতে কেউ তাকে বুঝতে না চাইলেও একমাত্র ছোটো ঠাম্মী মনে মনে বিশ্বাস করে তার নাম বৌ বাড়ি ছেড়ে যেতে পারে না। সে ফিরে আসবেই। অন্যদিকে উর্মির কাকা আর মামনিকে ডুয়ো নির্যাতিতা ওই মহিলা ফোন করে জানায় সাত্যকি ক্ষমা চাইতে রাজি হয়নি তাই তাকে কোর্টে যেতে হবে।

Related Articles

Back to top button