খবরছবিবিনোদনভাইরাল

বিদেশের মাটিতেও একটুকরো বাঙালিয়ানা, লন্ডনে বসন্তোৎসব পালন করলেন সৌরভ পত্নী ডোনা গাঙ্গুলি

কথায় বলে বাঙালি যেখানে যাক না কেন নিজের সাথে নিয়ে যান একরাশ বাঙালিয়ানা। যে বাঙালিয়ানা সবাইকে আপন করে নিজের রঙে রাঙিয়ে দেয়। সময়ের সাথে সাথে বহুবার একথা প্রমাণও হয়েছে বহুবার। সম্প্রতি সুদূর লন্ডনে পালন হল বসন্ত উৎসব। যার তত্ত্বাবধানে ছিলেন বিখ্যাত ওড়িশি নৃত্যশিল্পী স্ত্রী ডোনা গাঙ্গুলি (Dona Ganguly)। বাংলার গর্ব সৌরভ গাঙ্গুলির (Sourav ganguly) স্ত্রী বিদেশের মাটিও রাঙিয়ে দিলেন বাঙালি সংস্কৃতিতে।

প্রতিবছর ঠিক যেভাবে বাংলায় বা কলকাতায় বসন্ত উৎসব হয় ঠিক তেমনভাবেই পালিত হল। তবে অনুষ্ঠান হল লন্ডনের নেহরু সেন্টারে, যেটা লন্ডনের দ্য হাই কমিশন অফ ইন্ডিয়া।  তত্ত্বাবধানে ছিলেন ডোনা গাঙ্গুলি। আসলে কলকাতায় থাকাকালীন বসন্ত উৎসবের কর্মশালায় নাচে ইচ্ছুক যোগদান করতে পারতেন। তেমনই লন্ডনের মাটিতে তাঁর নিজের ছাত্র ছাত্রী ছাড়াও আরও অনেকের জন্য দরজা খোলা ছিল।

এদিন ট্রফিটিওনাল রাগাশ্রয়ী গানের সাথে দোলের জন্য জনপ্রিয় কিছু গানেও নৃত্য প্রদর্শিত হয়ে.এছাড়াও হিন্দি ছবির হোলির গানেও নাচ পরিবেশন করা হয়েছে এই অনুষ্ঠানে। রবি ঠাকুরের গান ‘একি লাবণ্যে পূর্ণ প্রাণ’, ‘পিয়া সঙ্গ খেলো হোলি’, ‘কাহে ছেড়ে আর মোহে রঙ্গ দো লাল এর কোলাজ’, ‘বসন্ত পল্লবী’, থেকে ‘বালাম পিচকারি’ গানে নৃত্য প্রদর্শনী হয়েছে এছাড়াও আরও একাধিক গান ছিল।

অনুষ্ঠান সম্পর্কে ডোনা গাঙ্গুলি বলেন, ‘লন্ডকনে আমার বেশ কিছু ছাত্র ছাত্রী রয়েছে। যখন কলকাতায় থাকি তখন অনলাইনে ক্লাস করাই তাদের। তাছাড়া অনেক প্রাক্তন ছাত্র ছাত্রীরা রয়েছে জারি বিদেশে থাকে। সেই সমস্ত ছাত্র ছাত্রীরাও এই অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করেছেন। আসলে নাচতে আমাদের কাছে একটা প্যাশন ও ভালো লাগার জিনিস’।

এছাড়াও তিনি আরও জানান, ‘করোনাকালে ঘরের মধ্যে বন্দি থাকায় অনলাইন ক্লাস ছাড়া কোন উপায়  ছিল না। তবে সেই বাঁধা কেটে যাওয়ায় লন্ডনের নেহেরু সেন্টারের উদ্যোগেই আয়োজিত হল এই অনুষ্ঠান। যেটা করতে পেরে আমরা সত্যিই খুব আনন্দিত’।

Related Articles

Back to top button