বিনোদনসিরিয়াল

‘নায়িকা নয় অভিনেত্রী হতে এসেছি’, নেটিজেনদের ট্রোলের যোগ্য জবাব দিলেন শ্রুতি দাস

‘দেশের মাটি’ আর পাঁচটা বাংলা সিরিয়ালের থেকে হটকে সিরিয়ালটি দর্শকদের কাছে বেশ জনপ্রিয়। প্রাথমিকভাবে নোয়া-কিয়ানের কাহিনী নিয়ে গল্প শুরু হয়েছিল। তবে এরপর গল্পে এসেছে আরেক জুটি রাজা-মাম্পি। দর্শকদের কাছে নতুন জুটির জনপ্রিয়তাও কোনো অংশে কম নয়। সিরিয়ালের নোয়া অভিনেত্রী শ্রুতি দাস। অভিনেত্রীকে বার বার নেটিজেনদের কটাক্ষের সম্মুখীন হতে হয়েছে।

সম্প্রতি আবারো সিরিয়ালে মাম্পির খারাপ দিক দেখাতেই দর্শকদের আক্রোশ গিয়ে পড়েছে নোয়া চরিত্রের অভিনেত্রীর ওপর। দেশের মাটি সিরিয়াল এমনকি ষ্টার জালসাকে বয়কট করার দাবি জানিয়েছেন অনেকেই। সোশ্যাল মিডিয়াতে এই বার্তা দিয়ে অভিনেত্রী শ্রুতি দাসকে ট্যাগ করেছেন অনেকেই। এবার এই সমস্ত কটাক্ষের যোগ্য জবাব দিলেন অভিনেত্রী শ্রুতি দাস নিজেই।

সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে অভিনেত্রী লিখেছেন, ‘আবার ও ক্রমাগত “নোয়া কে নায়িকা মানছি না মানব না” মার্কা পোষ্টে আমার নিউজ ফিড নোংরা হচ্ছে। “বয়কট স্টার জলসা” “বয়কট দেশের মাটি ” এসব আমায় শুনিয়ে খুব একটা আশানুরূপ ফল পাবেন বলে মনে হয়না। আমি নায়িকা হতে আসিনি,অভিনেত্রী হতে এসেছি। যিনি/যারা আমায় যথাযথ চরিত্র দিয়েছেন আমি তাঁর/তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞ। আর আমি নিজেকে নায়িকা বলে দাবীও করিনা তাই “TAG Shruti Das TO REACH OUR WORDS TO HER” বলে just কোনো লাভ নেই”।

আর শেষে অভিনেত্রী সুস্থতা কামনা করেছেন সেই সমস্ত নেটিজেনদের। আর বলেছেন, ‘পোষ্ট দিয়েও কোনো লাভ নেই জানি তবু আমি থামতে শিখিনি’। নেটিজেনদের কিছু  অংশ বিরূপ মন্তব্য করলেও অনেকেই কিন্তু শ্রুতি দাসের অভিনয়ের প্রশংসায় ভরিয়েছেন কমেন্ট বক্স। একাধিক নেটিজেনদের মতে, ‘এই সমস্ত ফালতু লোকের কথায় কান দিও না দিদি…একদম এদের এই সব কথা মনে রেখে নিজের লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যাও’।

আরেক নেটিজেনদের মন্তব্য, ‘কিচ্ছু বলবো না…. শুধু বলবো তোমাকে অনেকটা ভালোবাসি’। শ্রুতির এই প্রতিবাদী পোস্টে কমেন্ট করেছেন টলিউডের অভিনেতা জয়জিৎ ব্যানার্জী। তিনি লিখেছেন, ‘ওরে এদের কাছে কেস টা আঙ্গুর ফল টক’। তবে কিছু নেটিজেনদের মতে, ‘রাজা মাম্পি জুটিটার জন্যই সিরিয়ালটা দেখি। এভাবে রাজা-মাম্পিকে খারাপ চরিত্রে দেখবেন না প্লিস’।

সব মিলিয়ে সিরিয়ালের  জনপ্রিয়তা যে তুঙ্গে উঠেছে সে বিষয়ে বিন্দুমাত্র সন্দেহ নেই। তবে সিরিয়ালে রাজা-মাম্পি চরিত্রের প্রাধান্য কমানো হচ্ছে বলেই দশকের একাংশ ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন সোশ্যাল মিডিয়াতে। প্রসঙ্গত, অভিনেত্রী শ্রুতি দাসকে এর আগেও বার কয়েক কটাক্ষের মধ্যে পড়তে হয়েছে। তবে সেই সময়েও অভিনেত্রী যোগ্য জবাব দিয়েছিলেন সমস্ত কটাক্ষের।

Related Articles

Back to top button