বিনোদনসিনেমা

প্রেগন্যান্সি বাইবেল লিখে বিপাকে কারিনা! ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত, পুলিশের কাছে দায়ের হল অভিযোগ

বলিউডের বিখ্যাত অভিনেত্রী কারিনা কাপুর (Kareena Kapoor)। সিনেমা থেকে দ্বিতীয় সন্তান সমস্তটা মিলিয়ে সর্বদাই বিটাউনে চর্চায় থাকেন অভিনেত্রী। এবছরেই দ্বিতীয়বার মা হয়েছেন কারিনা কাপুর। আর নিজের মা হবার অভিজ্ঞতা নিয়েই লিখেছেন প্রেগনেন্সি বাইবেল। কিন্তু বই প্রকাশ্যে আসতেই শুরু বিপত্তি। বইয়ের নাম ‘প্রেগনেন্সি বাইবেল (Pregnency Bible)’ রেখে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করেছেন অভিনেত্রী! এই মর্মে দায়ের হয়েছে পুলিশি অভিযোগ।

কারিনার মাতৃত্বের বর্ণনামূলক এই বইটি প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই নানা ধরণের বিতর্ক সৃষ্টি হচ্ছে। তবে এবার বিতর্ক আরো বাড়ল, কারণ এক খ্রিস্টান ধর্মীয় সংগঠনের পক্ষ থেকে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। সংগঠনটি বইয়ের ‘প্রেগনেন্সি বাইবেল’ নামকরণে তীব্র আপত্তি জারি করেছে। এমনটাই জানা যাচ্ছে সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের তরফ থেকে।

যেমনটা জানা যাচ্ছে, করিনা কাপুর ও আরো দুজনের নামে এই অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। শিবাজী নগর পুলিশের কাছে আলফা ওমেগা খ্রিস্টান মহাসঙ্ঘের তরফে সভাপতি আশিস শিন্দে এই অভিযোগ দায়ের করেছেন। তার মতে, মাতৃত্বের অনুভূতি ব্যক্ত করে কারিনা যে বইটি প্রকাশ্যে এনেছেন সেটিতে ‘বাইবেল’ শব্দটি রয়েছে। এটি খ্রীষ্টান ধর্মের একপ্রকার অবমাননা করা হচ্ছে, কারণে বাইবেল খ্রীষ্টানদের ধর্মগ্রন্থ।

আশিস শিন্দের মতে ইচ্ছা করেই এই ধরণের নামকরণ করা হয়েছে। তাই ২৯৫-এ ধারায় ইচ্ছাকৃতভাবে বিশেষ ধর্মের মানুষের আবেগে আঘাত করার মত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে অভিনেত্রী কারিনা কাপুর, লেখিকা অদিতি শাহ ও বইটির প্রকাশ এই তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ জমা করা হয়েছে। তবে পুলিশের থেকে জানা গিয়েছে এপর্যন্ত অভিযোগ দায়ের হয়েছে FIR নয়।

প্রসঙ্গত, বিগত ৯ই জুলাই নিজের প্রেগনেন্সি বাইবেল বইটি প্রষ্টোম প্রকাশ্যে এনেছেন কারিনা। কারিনা বইয়ের ফার্স্ট লুক শেয়ার করে লিখেছিলেন, ‘আমি নিজেও বিশ্বাস করতে পারছি না যে আমি এই বইটা লেখার জন্য রাজি হয়েছি। আসলে প্রত্যেকের কাছেই মা হওয়াটা একটা বিশেষ অনুভূতি। আর এই বিশেষ অনুভুতিটা প্রত্যেকের ক্ষেত্রেই আলাদা আলাদা হয়ে থাকে। তবে কিছুটা একরকম অনুভূতিও থাকে’।

Complaint against Kareena Kapoor Pregnency Bible

এরপর অভিনেত্রী আরো লেখেন, ‘এই বইটির মধ্যেই দিয়ে আমি আমার গল্পটা শেয়ার করেছি। কিভাবে আমি নতুন নতুন জিনিস শিখেছি। আর এই বিশেষ অনুভূতিটাকে অনুভব করেছি। আশা করি আমার এই বইটি আপনাদের মাতৃত্বের সঙ্গী হয়ে উঠবে’। বইয়ের প্রথম ছবি প্রকাশ্যে আসার পরেই তা ব্যাপকভাবে ভাইরাল হয়ে  পড়েছিল।

Related Articles

Back to top button