বিনোদনসিরিয়াল

আগেভাগেই ছিল প্ল্যান! অপদার্থ রুদ্রিক সিঁথিতে সিঁদুর দিতেই ক্ষেপে লাল তিথি

বাংলা বিনোদনের   জগতে বরণ (Boron) সিরিয়াল ধীরে ধীরে দর্শকদের মনে জায়গা করে নিয়েছে। আর সম্প্রতি সিরিয়ালের প্লট একেবারে জমজমাট। অপদার্থ রুদ্রিকের সাথে নায়রার বিয়ে হচ্ছিল। কিন্তু বিয়ের মণ্ডপে নায়রাকে নয় বরং তিথির সিঁথিতে সিঁদুর পরিয়েছে রুদ্রিক। এমন এক কাণ্ডের পর রীতিমত ক্ষেপে লাল তিথি। কেন তার সিঁথিতে সিঁদুর পরালো রুদ্রিক? এই প্রশ্নের উত্তর চাই তার।

আসলে তিথির সাথে রুদ্রিকের বিয়েটা আগে ভাগেই প্ল্যানিং হয়ে গিয়েছিল। ঠাম্মি, বাবা এমনকি বিয়ের পুরোহিতও এই প্ল্যানে শামিল ছিল। কিন্তু এই প্ল্যানিংয়ের সন্মন্ধে কোনো ধারণাই ছিল না তিথির। যে কারণে সিদ্ধিতে সিঁদুর পড়াতেই বেজায় ক্ষেপে গিয়েছে সে। রুদ্রিকের কাছে তিথি জানতে চেয়েছে কেন এমনটা করল  সে! যার উত্তরে রুদ্রিক বলে, ‘আসলে ওই সময় আমার ইমোশন গুলো চলে এসেছিল, যে মেয়েটা আমার জন্য কত খাটছে’!

রাগের মাথায় টিভি বলেছে, ‘এই বিয়ে আমি মানি না’। এরপর রীতিমত শাড়ি বালিশ ছুড়ে রুদ্রিককে মারধর শুরু করে দিয়েছে তিথি। আসলে তার মতে এমন একটা বাজে ছেলের বউ হতে চায় না সে। রুদ্রিকের বাড়িতে সে আর থাকবে না, বাড়ি ছেড়ে চলে যাবে সাফ জানিয়ে দেয়। যদিও ঠাম্মি এসে তাকে  বুঝিয়ে দেয় যে তিথিই বাড়ির আসল বউ। চাইলেও সে এই সম্পর্ককে এড়িয়ে যেতে পারবে না।

এরপর অবশ্য মারামারির মধ্যে দিয়ে হলেও খুনসুটির মুহূর্ত দেখা গিয়েছে সিরিয়ালে। রুদ্রিককে ফ্লার্টিংয়ের স্বভাব নিয়ে খোটা দেয় তিথি। আর বলে, আমার কত সাধ ছিল একটা শিক্ষিত সুন্দর ছেলেকে বিয়ে করব! এর উত্তরে রুদ্রিক তিথিকে প্রশ করে, কেন আমি সুন্দর নই বুঝি?

এভাবেই বেশ কিছুক্ষণ কথা কাটাকাটির পর শেষমেশ ব্যাগপত্র গুছিয়ে বাপের বাড়ি রওনা দে তিথি। সেখাগে গিয়ে মাকে গোটা ঘটনার কথা জানায়। কিন্তু মেয়ের বদলে জামাইয়ের সাপোর্টেই চলে যায় মা। কিন্তু বিয়ে হলেও আদৌ কি সম্পর্কটা  তৈরী হবে তিথি ও রুদ্রিকের? সিরিয়ালের আগামী পর্বে এবার সংসারী হবার কাহিনীই দেখা যাবে।

Related Articles

Back to top button