গসিপবিনোদনসিনেমাসিরিয়াল

দক্ষ অভিনয়ের জেরে আজও রয়েছেন দর্শক হৃদয়ে, ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েই বিদায় জানান গৌতম দে

টলিউডের এমন কিছু অভিনেতা রয়েছেন যাদের অভিনয় দর্শকদের মন ছুঁয়ে গিয়েছে। এমনই একজন অভিনেতা হলেন গৌতম দে (Gautam Dey)। অভিনেতার প্রাণবন্ত ও সদাহাস্য অভিনয় আজও প্রতিটা বাঙালি দর্শকদের কাছে সমান জনপ্রিয়। সিরিয়ালের দৌলতেই মিলেছিল প্রথম জনপ্রিয়তা। এরপর একাধিক সিরিয়াল ও সিনেমা করে দর্শকদের ভালোবাসা পেয়েছেন প্রচুর। শেষে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন অভিনেতা।

গৌতম দে এমন একজন অভিনেতা ছিলেন যাঁর মুখে সর্বদাই হাসি লেগে থাকত। ‘জন্মভূমি’ সিরিয়ালের মধ্যে দিয়েই প্রথম জনপ্রিয় হন তিনি। এরপর থেকেই আর কোনোদিন পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি। সিরিয়াল থেকে সিনেমা বেশিরভাগই খল চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তবে নিজের দক্ষ অভিনয় ক্ষমতা দিয়ে প্রতিবারেই মুগ্ধ করেছেন দর্শকদের।

জন্মভূমি সিরিয়ালে নরনারায়ণ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন অভিনেতা। কাহিনী অনুযায়ী ছলনার আশ্রয় করে পিসিমার থেকে ময়নাগড়ের সমস্ত সম্পত্তি হাতিয়ে নেওয়াই ছিল তার উদ্দেশ্য। সিরিয়ালে পিসিমার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন অভিনেত্রী মিতা চট্টোপাধ্যায়। তবে গৌতম দের   সেই দুর্দান্ত অভিনয় আজও বাঙালি দর্শকদের কাছে স্মরণীয় রয়ে গেছে। তবে শুধুই খল চরিত্রে অভিনয় নয় সুঠাম চেহারার দৌলতে অন্যান্য চরিত্রেও অভিনয় করেছেন।

এমন একজন প্রতিভাবান অভিনেতা অভিনয়ে আসার আগে ছিলেন একজন ব্যাঙ্ক কর্মচারী। স্টেট ব্যাঙ্কের জীবনদীপ ও রাসবিহারী ব্রাঞ্চে দীর্ঘদিন কাজ করেছিলেন তিনি। থাকতেন কলকাতার চেতলায়, এরপর ধীরে ধীরে অভিনয়ে আসা নাটকের হাত ধরে। ছদ্দবেশী ,দম্পতি, বৈশাখী ঝড় ইত্যাদি নাটকে দুর্দান্ত অভিনয় করেছিলেন অভিনেতা। রবি ঘোষ, দুলাল লাহিরি, লিলি চক্রবর্তীর মত শিল্পীদের সাথেও কাজ করেছেন আবার নব প্রজন্মের ঋতাভরী চক্রবর্তীর সাথেও কাজ করেছেন তিনি।

এবাদেও একাধিক সিরিয়ালে তাঁর অভিনয় মনে রাখার মত। যার মধ্যে উল্লেখ্য ‘কুসুম দোলা’,‘ধেততেরিকি’, ‘হৃদয় হরন বিএ পাস’, ‘করুণাময়ী রানী রাসমণি ‘ ইত্যাদি সিরিয়ালগুলি। অভিনেতা শেষ জীবনে মরণ রোগ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছিলেন। এরপর ২০১৮ সালের ২৪শে ডিসেম্বর ক্যান্সারের কাছে জীবন যুদ্ধে পরাজিত হন। তাঁর প্রয়ানে গভীর শোকের ছায়া  নেমে এসেছিল  অভিনয় জগতে। তবে মৃত্যুতেই শেষ নয়, নিজের অভিনয়ের মধ্যে দিয়েই আজও মানুষের মনে বেঁচে রয়েছেন অভিনেতা।

Related Articles

Back to top button