গানবিনোদন

‘স্বরযন্ত্র খারাপ হয়েছে, গান গাইতে পারবেন না’! নেটপাড়ার জল্পনা উড়িয়ে মুখ খুললেন বাপ্পি লাহিড়ী

রাজ্যের গন্ডি ছাড়িয়ে গোটা দেশ তাঁর গানের জাদুতে মুগ্ধ। সেই আশির দশক থেকেই বলিউডে ডিস্কো গান মানেই সবার মুখে মুখে ঘুরতে শুরু করে একটাই নাম। তিনি হলেন সঙ্গীত পরিচালক বাপ্পি লাহিড়ী (Bappi Lahiri) । কিছুদিন আগেই করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন এই বর্ষীয়ান সংঙ্গীত শিল্পী। মুম্বইয়ের ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।কোভিডকে হারিয়ে ইতিমধ্যেই বাড়ি ফিরেছেন তিনি।

কিন্তু বর্ষীয়ান এই সঙ্গীত শিল্পীর নিয়ে ততদিনে চারপাশে শুরু হয়েছ মিথ্যে রটনা। ‘বাপ্পি লাহিড়ী কন্ঠ হারিয়েছেন’ মুহুর্তের মধ্যে দাবানলের গতিতে ছড়িয়ে পড়ে এমন গুজব। এই রটনা যে মিথ্যে তা আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় সাহায্যে অনুরাগীদের জানিয়ে দিয়েছিলেন বাপ্পি লাহিড়ী। তবে এহেন রটনায় যে এই বর্ষীয়ান সঙ্গীতশিল্পী দারুন আঘাত পেয়েছেন সেকথা স্পষ্ট তাঁর বার্তায়।

সম্প্রতি সমস্ত জল্পনায় জল ঢেলে নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে বার্তা দিয়েছিলেন বাপ্পি লাহিড়ী। তিনি লিখেছিলেন ‘কিছু মিডিয়া আমাকে নিয়ে এবং আমার স্বাস্থ্য সংক্রান্ত ভুয়ো রিপোর্ট ছড়াচ্ছে জেনে অত্যন্ত খারাপ লাগল। আমার অনুরাগীদের এবং শুভ্যানুধ্যায়ীদের আশীর্বাদে আমি ভাল আছি।’ সেইসাথে হ্যাশট্যাগ দিয়ে তিনি লিখেছিলেন ‘ফলস রিপোর্টিং’।

তবে এপ্রসঙ্গে এবার সরাসরি সংবাদমাধ্যমে মুখ খুলেছিলেন সকলের প্রিয় বাপ্পি লাহিড়ী। হতাশার সুরে তিনি জানিয়েছেন, ‘আমার নাকি স্বরযন্ত্র খারাপ হয়ে গিয়েছে, একাধিক জায়গায় এই রিপোর্ট দেখে আমার খুব খারাপ লেগেছে। এটা বিরক্তিকর। তিন দিন আগে আমার নাতির সঙ্গে একটা তথ্যচিত্রের জন্য শুটিং করছিলাম। সুস্থ না হলে সেটা পারতাম? আমি ৫০ বছরের বেশি সময় ধরে ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করছি। কখনও এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হইনি। ‘

তবে কোভিডের কারণে শরীরিক ভাবে অসুস্থ থাকায় এখন আর আগের মতো প্রচুর কাজ করতে পারছেন না। তবে এই অবস্থাতেও কাজ করে চলেছেন তিনি।বাপ্পি জানান, ‘সম্প্রতি তিনটে গান আমি রেকর্ড করলাম। কম্পোজও করেছি। একটা গণপতি বাপ্পা মোরিয়া। ওটা রিলিজও করল। দুর্গাপুজোর জন্য ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর সঙ্গে একটা গান রেকর্ড করলাম। দুদিন আগে একটা বাংলা ছবির সাউন্ড ট্র্যাকের কাজ শেষ করলাম। শান, আদিত্য নারায়ণ, আরমান মালিক, আলিশা চিনয় গাইছে সেই ছবিতে। আমার অনুরাগীরাই আমার ঈশ্বর। তাঁদের এবং গণপতি বাপ্পার আশীর্বাদে আমি ভাল আছি।’

Related Articles

Back to top button