বিনোদন

১১টি বিয়ে, স্বামীদের থেকে সমস্ত সম্পত্তি হাতিয়েই বিচ্ছেদ! পরীমণির পর গ্রেফতার বাংলাদেশী মডেল মৌ

দিন কয়েক আগেই বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ ওয়াইন, মাদক আইস, এলএসডি ও মাদক সেবনের সরঞ্জাম রাখার অভিযোগে আটক করা হয় ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরিমণিকে (Porimoni)। বুধবার একেবারে নাটকীয়ভাবে টানটান উত্তেজনার মধ্যেই বাংলাদেশের এই অভিনেত্রীকে আটক করে ব়্যাব অর্থাৎ ব়্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান (RAB)।

এবার এই ঘটনার দিন কয়েকের মাথাতেই মাদককাণ্ডে গ্রেপ্তার হলেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় মডেল মরিয়ম আক্তার মৌ (Mariyam Akhtar Mou)ও ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা। তবে গ্রেফতার হওয়ার পরেই মৌকে নিয়ে নানান বিতর্ক উঠে এসেছে। বাংলাদেশের গোয়েন্দা পুলিশ বা ডিবির তল্লাসীতে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য৷ ইতিমধ্যেই মডেল অভিনেত্রী মৌয়ের বাড়ির সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হয়েছে, পাশাপাশি মৌয়ের সঙ্গে যে বিশিষ্ট ব্যক্তিদের যোগাযোগ ছিল তাদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করা শুরু করেছে পুলিশ।

তদন্তে জানা গেছে, এখনো পর্যন্ত মৌ মোট ১১ টি বিয়ে করেছেন। বড়লোকের ছেলেদের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করেই বহু সম্পত্তি করেছেন মৌ। বিয়ের পর তাদের সমস্ত সম্পত্তি হাতিয়ে নেওয়ার পরেই সেই স্বামীর সাথে বিচ্ছেদ করে নিতেন তিনি, এরপর ফের বসতেন বিয়ের পিঁড়িতে। প্রাক্তন স্বামীরা মৌ-এর অপকর্ম সম্পর্কে সবই জানতেন। অনেকক্ষেত্রেই ঝামেলা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য স্বেচ্ছায় মৌকে তালাক দিয়েছেন তার স্বামীরা।

গত রবিবার রাতে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হওয়া আরেক মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মৌ-কে গ্রেপ্তার করা হয়। তার মুখেই জানা যায়, মহম্মদপুরে পাঁচতলা আলিশান বাড়ি রয়েছে তাঁর। নেক্সাস, পাজেরো ও টয়োটা ব্র্যান্ডের তিনটি দামি গাড়ি চালাতেন মৌ।

তার অধীনে আরও তিনজন তরুণী ছিলেন যারা একইভাবে ধনী ছেলেদের ফাঁদে ফেলে টাকা আদায় করত। এটি একটি বিশাল চক্র। নিজের ফাঁদে ফেলে মৌ এবং তার সহকর্মীরা ছেলেদের বাড়িতে আনতেব, মদ খাইয়ে অচেতন অবস্থায় অশ্লীল ছবি তুলে সেগুলোর মাধ্যমে ব্ল্যাকমেল করতেন বলেও জানা গিয়েছে। গরীব ঘরের আবরণ গায়ে চাপিয়ে দিনের পর দিন এই চক্র চালিয়ে গিয়েছেন তারা। দরিদ্র পরিবারের সুন্দরী তরুণী, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া ছাত্রীরা মৌ-এর প্রতারণা চক্রের সদস্য।

Related Articles

Back to top button