গসিপবিনোদন

হেরে যেতেই ICC চুর! ম্যাচে বাংলাদেশ হারতেই ভারতকে গালাগালি, বিতর্কে ‘সারেগামাপা’র নোবেল

জি বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় রিয়্যালিটি শো হল ‘সা রে গা মা পা’ (Sa Re Ga Ma Pa)। এই শোয়ের হাত ধরে যে কত গায়ক-গায়িকার কেরিয়ার শুরু হয়েছে তা গুনে শেষ করা যাবে না। এই জনপ্রিয় রিয়্যালিটি শো থেকেই জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন ওপার বাংলার প্রতিভাবান গায়ক মইনুল আহসান নোবেল (Mainul Ahsan Noble)।

ভারতবাসী চিনতে পেরেছিলেন ওপার বাংলার এই প্রতিভাবান গায়ককে। নিজের দেশে তো বটেই, সা রে গা মা পা’র সৌজন্যে গোটা বিশ্বে পরিচিতি পেয়েছিলেন নোবেল। কিন্তু সম্প্রতি প্রকাশ্যে সেই দেশকেই গালিগালাজ করলেন এই বাংলাদেশি গায়ক।

Mainul Ahsan Noble

এখন অস্ট্রেলিয়ায় টি-২০ বিশ্বকাপ চলছে। সম্প্রতি বিশ্ব জয়ের লড়াই থেকে ছিটকে গিয়েছে বাংলাদেশ। আর তাতেই চটে গিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভারতকে আক্রমণ করেন নোবেল। যে দেশের সৌজন্যে খ্যাতি, পরিচিতি পেয়েছেন, সেই দেশকেই অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন গায়ক। নোবেলের এই ব্যবহার দেখে স্বাভাবিকভাবেই চটে গিয়েছেন ভারতীয়রা। নেটমাধ্যমে পাল্টা বাংলাদেশি গায়ককে ধুয়ে দিয়েছেন তাঁরা।

Mainul Ahsan Noble

জানিয়ে রাখি, গত বুধবার অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেডে মুখোমুখি হয়েছিল ভারত এবং বাংলাদেশ। সেমিফাইনালের লড়াইয়ে টিকে থাকার জন্য ভারত এবং বাংলাদেশ দুই দেশের কাছেই এই ম্যাচ প্রচণ্ড গুরুত্বপূর্ণ ছিল। বৃষ্টিবিঘ্নিত সেই ম্যাচে শেষ পর্যন্ত বাজিমাত করে রোহিত শর্মার দল। ডিএলএস পদ্ধতিতে বাংলাদেশকে ৫ রানে হারিয়ে দেয় টিম ইন্ডিয়া।

Team India

যদিও নেদারল্যান্ডসের সৌজন্যে বাংলাদেশের কাছে সেমিফাইনালে পৌঁছনোর আরও একটি সুযোগ ছিল। কিন্তু পাকিস্তানের কাছে হেরে যাওয়ার টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয় শাকিব আল হাসানরা। রবিবার সন্ধ্যায় এরপর ফেসবুকে বিশ্বের সর্বোচ্চ ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থা আইসিসিকে একহাত নেন নোবেল। আইসিসি’কে ‘ইন্ডিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল’ বলার পাশাপাশি গালিগালাজ করেন। সেই সঙ্গেই সংশ্লিষ্ট পোস্টের কমেন্ট বক্সে ভারতকে নিয়ে জঘন্য, নোংরা নানান মন্তব্য করেন তিনি।

Mainul Ahsan Noble abused India

একাধিক বিতর্কিত মন্তব্যের সৌজন্যে অতীতেও বহুবার সংবাদমাধ্যমের শিরোনামে উঠে আসা নোবেলকে এরপর ধুয়ে দেন নেটিজেনরা। একজন লেখেন, ‘এতদিন পর আপনার নেশা কাটল! খাঁটি জিনিস ছিল মনে হচ্ছে’। অনেকে আবার এই লেখেছে, ‘ভাইয়ের নেটটা মনে হয় শেষ হয়ে গিয়েছিল। সেই জন্যই তাঁর পোস্টটা আটকে গিয়েছিল’। তবে যতই ট্রোল হোন না কেন, নোবেল যে এসব জিনিসকে বিশেষ পাত্তা দেন না, তা তাঁর কার্যকলাপ দেখেই বেশ বোঝা যায়।

Related Articles

Back to top button