খবরগানবিনোদন

গানের পিন্ডি চটকে বেসুরো গলায় গান! হিরো আলমের অত্যাচারে অতিষ্ঠ, উঠল গ্রেফতারের দাবি

কখনো রবীন্দ্রসংগীত তো কখনো টাইটানিকের ইংরেজি গান হিরো আলমের (Hero Alom) গলায় একাধিক নতুনত্ব গান উপহার পেয়েছেন ভারত, বাংলাদেশ তথা সমগ্র বিশ্ববাসী। তবে আদৌ সেটা উপহার নাকি অত্যাচার সেটা ব্যক্তি বিশেষে আলাদা হতেই পারে। দুর্দান্ত গানের গলা বা সুরের জ্ঞান কোনোটাই সেভাবে নেই বাংলাদেশী হিরো, পরিচালক তথা গায়ক হিরো আলমের। তবে মানুষের বিনোদনের জন্যই নাকি তিনি এসমস্ত করেন।

নিজের সিনেমা থেকে গান গাওয়ার ভিডিও ও মিউজিক ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করেন হিরো আলম। বাংলাদেশের নায়কদের মাঝেও জনপ্রিয়ত তিনি। জনপ্রিয়তার জেরে ইউটিউবে লক্ষ লক্ষ সাবস্ক্রাইবার রয়েছে তাঁর। কিন্তু মুশকিল হল প্রশংসার বদলে কটাক্ষ আর নিন্দাই বেশি জোটে হিরো আলমের ভাগ্যে (hero alom trolled)।

Hero Alam left Bangladesh film industry coming to Kolkata

কিছুদিন আগেই রবীন্দ্র সংগীত গেয়ে সেই ভিডিও শেয়ার করেছিলেন হিরো আলম (Hero Alom Rabindra Sangeet)। ভিডিওতে তিনি বলেন, বাঙালি হিসাবে রবীন্দ্রসংগীত তার খুবই ভালো লাগে তো তাঁর রবীন্দ্রসংগীত গাওয়ার অধিকার আছে। এরপর হাতে গিটার নিয়ে ‘আমার পরাণ যাহা চায়’ গান গেয়ে শুনিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই গানে সুর বা লিরিক্স কোনোটারই ঠিক ছিল না। গান শুনে একপ্রকার খেপে লাল হয়ে গিয়েছিলেন নেটিজেনরা।

হিরো আলমের গলায় রবীন্দ্র সংগীত শুনে, ‘গানটার ধর্ষণ করে দিল’ বলে মন্তব্য করেছিল এক নেটিজেন। তো কেউ আবার বলেছিলেন, ‘রবীন্দ্রনাথ বেঁচে থাকলে এই গান শুনেই আত্মহত্যা করতেন’। এমন একাধিক মন্তব্যে ভরে গিয়েছিল কমেন্ট বক্স। সবে লোকের কুকথা থেকে কটাক্ষ কিছুই থামাতে পারেনি তাকে। এরপর প্রয়াত গায়ক কেকের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ‘কাইটস’ ছবির ‘জিন্দেগী দো পল কি’ গেয়ে শুনিয়েছেন। সেই গান শুনেও তিতিবিরক্ত নেটপাড়া।

হিরো আলমের এহেন গানের অত্যাচারে এবার অতিষ্ট বাংলাদেশের লোকেরা। তাই অবশেষে মানবন্ধনের আয়োজন করা হয়েছে ‘বাংলাদেশ অপসংস্কৃতি প্রতিরোধ সংস্থা’ এর তরফ থেকে। গতকালই ঢাকার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন হয়। যেখানে বেশ কিছু বিশিষ্ট মানুষেরাও উপস্থিত ছিলেন। এই মানববন্ধনের দাবি, দিন দিন মাথায় চড়ে গিয়েছেন হিরো আলম। নিজের বেসুরো গান দিয়ে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন তিনি। তাই হিরো আলমকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে ওই সংগঠন (Arrest Hero Alom)।

প্রসঙ্গত, রবীন্দ্রসংগীত গাওয়ার জেরে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন হিরো আলম। তবে তিনি আগেই ভিডিওতে স্বীকারোক্তি দিয়েছিলেন যে. ‘আমি কোনো গায়ক নই। সেই দাবি আমি করিনি আর করছিও না। আমি শুধুমাত্র মানুষকে বিনোদন দেওয়ার চেষ্টা করি।’

Related Articles

Back to top button