সম্পত্তিতে হয়তো টপকে দিতেন অম্বানিকেও, কিন্তু এই একটা ভুলের জন্য করতে হচ্ছে আফসোস


কথায় বলে তাড়াহুড়ো শয়তানের কাজ। আসলে কথাটির অর্থ হল আমরা তাড়াহুড়োর বসে অনেক এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলি যা আমাদের বেশির ভাগ ক্ষতির মুখে ঠেলে দেয়। এই ভুল সিদ্ধান্ত জীবনসঙ্গী বাছার হোক বা চাকরি বেছে নেবার, তাড়াহুড়োয় নেওয়া সিদ্ধান্তের বেশিরভাগই ভুল সিদ্ধান্ত হয়। যার ফলে আমাদের জীবন কিছু তা হলেও বদলে যায়।

এবার এমন এক ব্যক্তির কথা আপনাদের বলব, যার তাড়াহুড়োর কারণে জীবনধারায় বদলে গেছে। আগেই বলেছি তাড়াহুড়োর সিদ্ধান্ত বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ভুল সিদ্ধান্ত হয়, যদিও কিছু ক্ষেত্রে তার ব্যতিক্রম দেখা যায় তবে সেটা হয়তো লাখে একবার। এই ব্যক্তিও তাড়াহুড়োয় একটি ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন যার কারণে তাকে এখনো অবধি আফসোস করতে হয়।

এই ব্যক্তির নাম হল রোনাল্ড ওয়েন। রোনাল্ড ওয়েন হলেন অ্যাপলের তিন প্রতিষ্ঠাতার মধ্যে তৃতীয় জন। অ্যাপল হল বিশ্বের বৃহত্তম মাল্টি ন্যাশনাল সংস্থা। রোনাল্ড তাড়াহুড়োয় এমন একটি সিদ্ধান্ত নেন যার জন্য তিনি কাঙাল হয়ে যান একসময়। রোনাল্ড ও তার দুই বন্ধু স্টিভ জবস এবং স্টিভ ওয়াজনিয়াক একসাথে ১লা এপ্রিল ১৯৭৬ সালে অ্যাপল সংস্থা শুরু করেছিলেন। যে খুব ছোট থেকে শুরু করে আজ বিশ্বের বৃহত্তম প্রযুক্তি সংস্থায় পরিণত হয়েছে। রোনাল্ড অ্যাপলের লোগোটি ডিসাইন করেছিলেন। তিনি হয়তো ভাবতেও পারেননি অ্যাপল ভবিষ্যতে এত বড় একটি সংস্থায়  পরিণত হবে।

রোনাল্ড যেহেতু প্রতিষ্ঠাতাদের মধ্যে একজন ছিলেন তার কাছে অ্যাপলের শেয়ার ছিল। প্রাথমিক পর্যায়েই তিনি ১০% অ্যাপলের শেয়ার বিক্রি করে দেন মাত্র ৮০০ ডলারের পরিবর্তে। যা আজকের দিনে ৫ লক্ষ্য কোটি টাকা ভারতীয় মুদ্রায়। রোনাল্ড তাড়াহুড়োয় ভবিষ্যতের কথা চিন্তা না করেই এই সিদ্ধান্ত নেন, যার জন্য তিনি ও তার পরিবার আজও আফসোস করছেন।

যদি তিনি সেদিন এই সিদ্ধান্ত না নিতেই তাহলে হয়তো আম্বানির মত তিনিও পৃথিবীর ধনীতম ব্যক্তিদের মধ্যে একজন হতেন। এই জন্যই বলা হয় যেকোনো সিদ্ধান্ত নেবার সময় ভেবেচিনতে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। তাড়াহুড়োয় সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত নয়।


Like it? Share with your friends!

652
652 points