বিনোদনসিরিয়াল

লক্ষ্মী কাকিমার আবেগের মৃত্যু! শেষ দিনের শুটিং সেরে আবেগপ্রবণ অপরাজিতা আঢ্য

বাংলা টেলিভিশনের পর্দায় এখন নতুন সিরিয়ালের মেলা। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই শেষ হয়ে যাচ্ছে যে কোন সিরিয়াল। কারও বয়স মাত্র৩ মাস তো কারও বড়জোর এক বছর। এরই মধ্যেই নিয়ম মেনে শেষ হয়ে যাচ্ছে একের পর এক সিরিয়াল। এই মুহূর্তে শেষের মুখে জি বাংলার এমন এমনই একটি জনপ্রিয় ধারাবাহিক হল  ‘লক্ষ্মী কাকিমা সুপারস্টার’ (Lokhi Kakima Superstar)।

সাংসারিক কুটকচালী কিংবা পরকীয়া মুক্ত এই সিরিয়ালের অন্যতম ইউএসপি লক্ষ্মী কাকিমা এবং তার হাঁস।  এক বছরের মধ্যেই টিভির পর্দায় শেষ হয়ে যাচ্ছে এই সিরিয়াল।  বছর শেষের একদিন আগেই অর্থাৎ ৩০ ডিসেম্বর সম্পন্ন হয়েছে এই সিরিয়ালের অন্তিম পর্বের শুটিং (Last Day of Shooting)। প্রসঙ্গত মেগা সিরিয়ালে কাজ করা মানেই অভিনেতা-অভিনেত্রী থেকে শুরু করে সিরিয়ালের অন্যান্য সমস্ত কলা কুশলী সকলেরই দিনের বেশিরভাগ সময়টাই কেটে যায় শুটিং ফ্লোরে।

বাংলা সিরিয়াল,Bengali Serial,অপরাজিতা আঢ্য,Aparajita Adhya,লক্ষ্মী কাকিমা সুপারস্টার,Lokhi Kakima Superstar,অন্তিম পর্বের শুটিং,Last Day of Shooting

তাই দিনের পর দিন একসাথে শুটিং করতে করতে, সকলেই হয়ে ওঠে একেবারে পরিবারের মতো। একই ছবি অপরাজিতা আঢ্য (Aparajita Adhya) অভিনীত লক্ষ্মী কাকিমা সুপারস্টার পরিবারের। তাছাড়া এক বছর সময়টা নেহাত কম নয়। এই সময়ের মধ্যে লক্ষ্মী কাকিমা সিরিয়ালের সমস্ত কলাকুশলীরা হয়ে উঠেছিলেন একে অপরের পরিবারের মতোই।

Aparajita Adhya opens up about Lokkhi Kakima Superstar ending

তাই সিরিয়ালের অন্তিম পর্বের শুটিংয়ে শেষে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলেন অভিনেত্রী। স্মৃতির পাতা উল্টে এই এক বছরের সফরের বিভিন্ন মুহূর্তের একগুচ্ছ ছবি শেয়ার করে নিয়ে ছিলেন অভিনেত্রী। সেখানে লক্ষ্মী কাকিমাকে কখনও সর্দারজির সাজে দেখা গিয়েছে, আবার কখনো উঠে এসেছে সিরিয়ালের সমস্ত কলাকুশলীদের সাথে অভিনেত্রীর কাটানো অফস্ক্রিন বিভিন্ন মুহূর্তের ছবি।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Aparajita Adhya (@adhyaaparajita)


এদিন সেই স্মৃতির কোলাজ  শেয়ার করে ক্যাপশনেপর্দার লক্ষ্মী কাকিমা লিখেছেন ‘আজ আমার লক্ষ্মী কাকিমা সুপারস্টার এর লাস্ট শুটিং ছিলো। একটা ধারাবাহিক যখন শেষ হয়ে যায় কি হয়! সবাই বলবে কি আবার হয় নতুন ধারাবাহিক শুরু হয়।  সেটা তো জীবনের নিয়ম কিছু শেষ হলে কিছু শুরু হয়। কিন্তু এই যে তিল তিল করে প্রতিদিন একটি পরিবার তৈরী হয়, সেই সমগ্র পরিবারটার অর্থাৎ সব অভিনেতা অভিনেত্রী ও কলা কুশলীদের আবেগর মৃত্যু হয়।  এবং একাধিক বার সেই যন্ত্রণা ভোগ করতে হয়। সে যে কি যন্ত্রণার খুব কম জনই তা বোঝে’।

Related Articles

Back to top button