ছবিবিনোদনসিনেমা

করোনার সাথে লম্বা যুদ্ধে জিতে মাতৃ দিবসে বাড়ি ফিরলেন অভিনেতা অঙ্কুশের মা

আজকের দিনটা হল মাতৃ দিবস। অর্থাৎ মায়েদের জন্য উৎসর্গ এই দিনটি। গোটা পৃথিবীতেই এই দিনটি সেলেব্রেটি করা হচ্ছে, পাশাপাশি ভারতেও চলছে সেলেব্রেশন। আসলে একজন মায়ের গুরুত্ব তার  সন্তানরাই সবচেয়ে বোঝে হয়তো। কারণ মায়ের সাথে সন্তানদের সম্পর্কটা যে অনেকটা গভীর হয়। আর পৃথিবীর সবচাইতে সুন্দর অনুভূতি তো মায়ের কোলেই পাওয়া যায়। এবার মাদার্স ডে তে সেরা উপহার পেলেন টলি অভিনেতা অঙ্কুশ হাজরা (Ankush Hazra)।

গতমাসেই করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন অভিনেতা মা। তবে আজ অর্থাৎ মাতৃ দিবসের দিনেই করোনার বিরুদ্ধে টানা ২০ দিন ধরে যুদ্ধ করে বাড়ি ফিরেছেন অভিনেতার মা। মাঝে আটদিন খুবই খারাপ অবস্থা ছিল করোনার কারণে। বলতে গেলে মরণবাচন লড়াই শেষে সুস্থ হয়েছেন তিনি। আর এবার বাড়ি ফিরলেন। তাই বলাবাহুল্য মাতৃ দিবসে সেরা উপহারটি পেনেন অভিনেতা অঙ্কুশ।

নিজের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেল ইনস্টাগ্রামে নিজের জীবনের এই খুশির মুহূর্তে শেয়ার করে নিয়েছেন অভিনেতা। মায়ের সাথে একটি ছবি শেয়ার করে অভিনেতা লিখেছেন, ‘ আমার এখনো মনে আছে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার দিন মায়ের চোখের জলটা। না এটা আনন্দের অশ্রু ছিল না, এটা ওই সব চিকিৎসক ও নার্সদের জন‍্য ছিল যারা সবসময় তাঁর খেয়াল রেখেছিলেন। হাসপাতাল থেকে বেরোনোর সময় মা ওদের বলল, “বাবু তোরা নিজেদের খেয়াল রাখিস। আমার আশীর্বাদ তোদের সাথে সবসময় রইল। তোরা ভগবান।”আটদিন আইসিইউতে, প্রায় ২০ দিন যন্ত্রণার সঙ্গে লড়াই। আর এখন আমি তাঁর কোলে। হ‍্যাঁ, উনি একজন করোনা যোদ্ধা।’

এরপর মাকে সুস্থ করে তোলার জন্য ডাক্তার তথা নার্সদের ধন্যবাদ জানাতে ভোলেননি অভিনেতা। তাদেরকে মানুষরূপী ঈশ্বর বলেই মন্তব্য করেছেন অঙ্কুশ। সাথে সকলকেই করোনা কালী সমস্ত বিধি নিষেধ তথা নিয়ম মেনে চলার আবেগন জানিয়েছেন অভিনেতা। কারণ এতে চিকিৎসক তথা স্বাস্থ্যকর্মীরাও কিছুটা সাহায্য পাবে পরিস্থিতির মোকাবিলায়।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই হবু বউ তথা অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে মালদ্বীপে ঘুরতে গিয়েছিলেন অঙ্কুশ। সেখানে গিয়েই করোনা আক্রান্ত হয় পড়েন দুজনে। যার ফলে ফেরার ইচ্ছা থাকলেও সেখানেই কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হয়েছিলেন অঙ্কুশ ও ঐন্দ্রিলাকে। তবে এরপর সুস্থ হয়ে দেশে ফিরেছেন দুজনেই।

Related Articles

Back to top button