খবরবিনোদনসিনেমা

বাজি ফাটানো উচিত নয়! জ্ঞান দিলেন অনিল কাপুরের ছেলে, বাবার পুরোনো কীর্তি ভাইরাল হতেই উধাও টুইট

গতকাল ছিল আলোর উৎসব দীপাবলি, তবে দীপাবলির সাথে চলে বাজি ফাটানোর তোড়জোড়। দীপাবলি উপলক্ষে সকলেই একেঅপরকে শুভেচ্ছা জানান, তেমনি বলিউডের সেলিব্রিটিরাও শুভেচ্ছাবার্তা জানান সোশ্যাল মিডিয়াতে। এবারেও তার অন্যথা হয়নি। একাধিক বলিউড তারকারা দীপাবলির শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তবে শুভেচ্ছার পাশাপাশি বাজি যাতে না পোড়ানো হয় সেই নিয়েও অনেক আবেদন করেছেন। অনিল কাপুরের ছেলে হর্ষবর্ধন কাপুরও আবেদন করেছেন বাজি না ফাটানোর জন্য।

কিন্তু বাজি না ফাটানোর আবেদন জানাতেই মিলেছে ট্রোলের উপহার। দীপাবলিতে শুধুমাত্র পরিবেশ বান্ধব বাজি পোড়ানোর আদেশ মিলেছে হাইকোর্টের তরফে। যদিও সেই নিয়ম খুব একটা যে পালন হয়নি সেটা বোঝাই গিয়েছে গতকাল রাত্রে। গোটা দেশেই ধুমধাম করে পালিত হয়েছে দীপাবলির উৎসব। সেই সময়েই বাজি কেন পোড়ানো  উচিত নয় সেই নিয়ে একটি টুইট করেন অনিলপুত্র হর্ষবর্ধন।

সেলেবপুত্রের টুইট বলে  কথা মুহূর্তের মধ্যে সেই টুইট ভাইরাল হয়ে পরে। টুইটে হর্ষ লিখেছেন, ‘লোকে এখনো বাজি ফাটাচ্ছে সব জায়গায়। আমার পোষ্যরা ভয় পেয়ে রয়েছে, তাদের জন্য এটা খুবই অস্বস্থিকর আর বাড়ির লোকদের থেকে পরিবেশ সবের জন্যই এটা ক্ষতিকর। আমি এমন কোনো সাংস্কৃতিক প্রথার জালে নিজেকে কখনোই জড়াইনি’। টুইট দেখেই ট্রোলাররা শুরু করে দিয়েছে নিজেদের কাজ।

একসময় হর্ষবর্ধনের বাবা অর্থাৎ  অভিনেতা অনিল কাপুর নিজেই দীপাবলিতে বাজি পুড়িয়ে সেলিব্রেশন করেছিলেন। সেই পুরোনো ছবি পোস্ট করে হর্ষবর্ধনের  টুইটের খোজ দিতে শুরু করেন নেটিজেনরা। ছবিতে ছেলে মেয়ে সহ অনিল কাপুরকে দেখা যাচ্ছে। ছেলের টুইটের পাশাপাশি বাবার বাজি পোড়ানোর ছবিও ভাইরাল হয়ে পরে। ট্রোলের জেরে বাধ্য হয়ে শেষে টুইট ডিলিট করে দেন হর্ষ।

তবে ভাইরাল হওয়া পুরোনো ছবিতে ট্রোলের বিরুদ্ধে জবাব দিয়ে পিছপা হননি হর্ষ। এক নেটিজেনদের ট্রোলের পোস্টে তিনি লেখেন, ‘এটা অনেক বছর আগের ছবি। কিন্তু আমরা যত এগিয়ে চলেছি নিজেদের আরো ভালো করার চেষ্টা করছি। অন্তত আমরা কিছু জন অন্তত চেষ্টা করছি’। তো আরেকজনকে লিখেছেন, ‘পরিবর্তন হয়েছি ভাই, তুমি হয়েছো? মনে হয় না!’

Related Articles

Back to top button