খবরভাইরাল

ইংল্যান্ডের রাজকুমারী হয়ে নিজের ব্রা, অন্তর্বাস বিক্রি করছেন অনলাইনে, শিরোনামে Amelia Windsor

ব্রিটেনের রাজকুমারী মানেই অপরূপ সৌন্দর্য আর আভিজাত্যের অধিকারীনি। একথার কোনো নড়চড় নেই। ব্রিটেনের রাজপরিবারের রাজকন্যা অ্যামেলিয়া উইন্ডসর (Amelia Windsor)। তিনি কিং জর্জ পঞ্চম-এর নাতনী এবং সেন্ট অ্যান্ড্রুজের আর্ল জর্জ উইন্ডসারের কনিষ্ঠ কন্যা। সদ্য ২৬ বছর বয়সে পা রেখেছেন সুন্দরী রাজকন্যা। রাজ পরিবারের সন্তান হওয়ার পাশাপাশি ইতিমধ্যেই মডেলিং বিশেষ খ্যাতি অর্জন করেছেন অ্যামেলিয়া।

২০১৭ সালে, অ্যামেলিয়া রাজপরিবারের সবচেয়ে সুন্দর সদস্যের ট্যাগ জিতেছিলেন। এর পরে, অ্যামেলিয়া অনেক নামী মডেলিং এজেন্সির সাথে যুক্ত রয়েছেন তিনি। এছাড়া তাঁকে নিয়মিত সোশ্যাল মিডিয়ায় বিশেষ করে ইনস্টাগ্রামে অ্যাক্টিভ থাকতে দেখা যায়। একে সুন্দরী তার ওপর রাজকন্যা তাই স্বভাবতই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেলে মেয়ে নির্বিশেষে তাঁর অনুরাগীর সংখ্যা নেহাত কম নয়।

Amelia Windor

অ্যামেলিয়া একাধিকবার শিরোনামে এসেছেন নিজের অতুলনীয় সৌন্দর্যের কারণে কিংবা গ্ল্যামারাস লাইফস্টাইলের কারণে। তবে সম্প্রতি এই রাজকুমারীর একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্ট ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে অ্যামেলিয়া তাঁর নিজের বাতিল করে দেওয়া ব্রা এবং অন্যান্য ইনার ওয়্যার (Inner Wear) বিক্রি করার কথা বলেছেন।

Amelia Windsor selling her clothes

যা দেখে অনেকের মনে প্রশ্ন জেগেছে হঠাৎ কি এমন হল যে অ্যামেলিয়ার মতো একজন রাজকন্যা কে তাঁর ইনার ওয়্যার বিক্রি করতে হচ্ছে! তবে রাজকন্যার টাকার অভাব হলো? আসলে তেমন কিছুই না। পুরো বিষয়টা তাহলে খুলে বলা যাক। এইভাবে অনলাইনে নিজের পুরনো ইনার ওয়্যার বিক্রি করার কারণ হিসাবে রাজকন্যা বলেছেন রাজপরিবারের সন্তান হিসাবে প্রায়ই তাঁকে জনসমক্ষে যেতে হয়। তাই অনেক সময় একই ড্রেস যদি কোথাও রিপিট করে ফেলেন তাহলে রাজ পরিবারের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়, এবং তাঁকে ট্রোল মুখে পড়তে হয়।

বিষয়টি একেবারেই ঠিক বলে জানিয়েছেন রাজকন্যা। তাই এই পরিস্থিতি থেকে নিস্তার পেতে কখনও নিজের পোশাক একবারের বেশি পরেন না রাজকুমারী। তা সে যত দামী এবং ডিজাইনার পোশাকই হোক না কেন। তাই নিজের আলমারি খালি করতে মাত্র একবার পরা ডিজাইনার জামাকাপড় অত্যন্ত কম দামে অনলাইনে বিক্রি করেন অ্যামেলিয়া। আর তারপর যে টাকাটা তিনি উপার্জন করেন সেটা তিনি দান করে দেন।

Related Articles

Back to top button