গসিপবিনোদনসিরিয়াল

মধ্যবিত্ত হয়েও অভিনয়ে আসা, লকডাউনে বিক্রি করেছেন সবজি, আজ সিরিয়ালের হিরো ঋত্বিক মুখার্জী

বাঙালি সিরিয়ালের দৌলতে অনেক নতুন অভিনেতা অভিনেত্রীকে পেয়েছেন বাংলা ইন্ডাস্ট্রি। এমনই একজন ভালো অভিনেতা হলেন ‘আমাদের এই পথ যদি না শেষ হয় (Amader Ei Path Jodi Na Sesh Hoy)’ সিরিয়ালের অভিনেতা ঋত্বিক মুখার্জী (Writwik Mukherjee)। সিরিয়ালে সত্যকির চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। যার জেরে ইতিমধ্যেই বেশ জনপ্রিয় হয়েছেন ঋত্বিক। তবে শুরুটা কি এতটা সুন্দর ছিল? না একেবারেই না, অনেক কষ্ট করেই আজ এই জায়গায় পৌঁছেছেন অভিনেতা।

মধ্যবিত্ত পরিবারেরই ছেলে ঋত্বিক মুখার্জী। সম্প্রতি নিজের জীবনের সংগ্রামের কথা সকলের সাথে শেয়ার করেছেন অভিনেতা। ‘জোশ টকস’ নামের ইউটিউব চ্যানেলে হাজির হয়েছিলেন অভিনেতা। সেখানে নিজের মুখেই জানিয়েছেন কিভাবে অভিনয় নিয়ে এগিয়েছিলেন তারপর একসময় হাল ছেড়ে দিতে বসেছিলেন শেষে সুযোগ পান আর আজ টেলিপাড়ার জনপ্রিয় অভিনেতা।

Writwik Mukherjee

অভিনেতা জানান সকলেরই জীবনী একটা যাত্রাপথ থেকে। কমবেশি সংগ্রাম করেন তবে জীবনে কিছু করতে গেলে আগে নিজের লক্ষ্য ঠিক করে নিতে হবে। আমি কি করতে চাই সেটা আগে বুঝে নিতে হবে, এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মধ্যবিত্ত পরিবারেই মানুষ ঋত্বিক, কলেজের পড়াশোনার শেষে ভাবনা শুরু হয় কিছু তো করতে হবে জীবনে। তখনই এক বন্ধু বলে চল অভিনয় করি। তখন মনে পরে অভিনেতার বাবাও একসময় থিয়েটারে অভিনয় করেছিলেন। সেই থেকেই অভিনয়ের সূত্রপাত।

থিয়েটার দিয়েই শুরু হয় অভিনয় যাত্রা। তবে দুঃখের বিষয় হল অভিনয়ের হাতে খড়ি থিয়েটার দিয়ে হলেও অর্থনৈতিকভাবে থিয়েটার অভিনেতা হিসাবে টিকে থাকা খুবই মুশকিল। যারা থিয়েটারের সাথে যুক্ত তাঁরা জানেন কতটা কঠিন আর চ্যালেঞ্জিং থিয়েটার চালিয়ে যাওয়াটা। তবুও থিয়েটার চলতে থাকে, সাথে টাকার জন্য কিছু পার্ট টাইম কাজ করেছিলেন অভিনেতা।  কিন্তু একসময় তাতেও হয়নি, তাই কিছু  টাকা জমানোর উদ্দেশ্যে একবছর থিয়েটার ছেড়ে কাজে ঢুকে টাকা জমিয়ে আবারও থিয়েটারে আসা।

Amader Ei Path Jodi Na Sesh Hoy actor Writwik Mukherjee

এভাবে ৫ বছর চলার পর একসময়  হাল ছেড়ে দিয়েছিলেন অভিনেতা। শেষে চাকরিতে যোগ দেন। তারপর একসময় আবারও অভিনয়ের ডাক আসে। কাজের পাশাপাশি রবিবার অভিনয় শুরু করেন, শর্টফিল্মের মধ্যে দিয়ে। এরপর ‘Once Humble Theater Group’ এর ইন্টারভিউ দিয়ে সুযোগ মেলে, আড়াই বছর সোহাগ সেনের সাথে কাজ করা ও কাজ শেখা। এরপর করোনা আসতেই চিন্তার পাহাড় ভেঙে পরে। কিছুদিনের মধ্যে জমানো টাকা সব শেষ হয়ে যায়। এমনকি ফোনের রিচার্জ টুকু করারও টাকা ছিল না।

এরপর যখন প্রায় পাগলের মত হয়ে যাবার জোগাড় তখন পাড়ার মোড়ে টাকার জন্য সবজি বিক্রি করতে বসেছিলেন ঋত্বিক মুখার্জী। যাতে ফোনের রিচার্জ টুকু করানো যায়, আর কাজ শুরু হলে কিছু টাকা থাকা কাছে। এরপর লকডাউন খুলতে সবজি বিক্রিও বন্ধ হয়ে যায়। এরপর ‘প্রথমা কাদম্বিনী’ সিরিয়ালের ডাক মেলে। তারপর সেই সিরিয়াল শেষ হবার পর ‘আমাদের এই পথ যদি না শেষ নয়’ সিরিয়ালের লিড চরিত্রের অফার পান।

মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে হয়েও হিরো হবে সেটা ভাবতেই পারেননি তিনি। তবে সেটা হয়েছে, আজ একটা জনপ্রিয় সিরিয়ালের প্রধান অভিনেতা ঋত্বিক মুখার্জী। তাই বাকিদের উদ্দেশ্যে অভিনেতা জানান, জীবনে কোনো কিছুর জন্য আশা আকাঙ্খা না করে লক্ষ্য স্থির করে সংগ্রামের মধ্যে দিয়েও এগিয়ে গেলে ঠিকই স্বপ্নের জায়গায় পৌঁছাতে পারবেন।

Related Articles

Back to top button