বিনোদনসিরিয়াল

সারাদিনের সম্বল ছিল ৫০ টাকা, বসতে দিত না মেকআপ রুমে! রইল ‘টলি ডিভা’ সুদীপ্তার সংগ্রামের অজানা কাহিনী

বাংলা সিরিয়ালের (Bengali Serial) অত্যন্ত জনপ্রিয় একজন অভিনেত্রী হলেন সুদীপ্তা ব্যানার্জি (Sudipta Banerjee)। ২০০৭ সাল থেকে শুরু করে আজ ১৬ বছর ধরে এই পেশার সাথে যুক্ত রয়েছেন অভিনেত্রী। বর্তমানে তিনি অভিনয় করছেন জি বাংলার জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘সোহাগ জল’ (Sohag Jol)-এ। এই ধারাবাহিকে নায়ক শুভ্রর বিধবা বৌদি বিনির চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি।

যদিও কেরিয়ারের শুরুতে নায়িকা হিসাবেই আত্মপ্রকাশ করেছিলেন সুদীপ্তা। তবে পরবর্তীতে খলনায়িকা সেজেই পেয়েছেন বিরাট সাফল্য। সুদীপ্তার অভিনয়ের হাতেখড়ি হয়েছিল ‘খেলা’ সিরিয়ালে বিন্দু চরিত্রে অভিনয় করে। সে সময় তিনি ছিলেন ক্লাস টুয়েলভের ছাত্রী। সম্প্রতি জীবনের এমনই নানান অজানা কাহিনী (Unknown Facts) নিয়ে সুদীপ্তা হাজির হয়েছিলেন ইউটিউব চ্যানেল জোশ টকসের মঞ্চে।

Sudipta Banerjee in Sohag Jol

আদতে হাওড়ার শিবপুরের বাসিন্দা সুদীপ্তার নাকি বরাবরই ছিল নিন্ম মধ্যবিত্ত পরিবারের খুব সাধারণ একজন মেয়ে। যার পড়াশোনাও হয়েছে বাংলা মিডিয়ামে। এছাড়া অভিনয় জীবনের শুরুর দিকের কথা জানিয়ে সুদীপ্তা বলেছেন একটা সময় তাঁর বাবার রিটায়ারমেন্টের পর সংসার চালানোর জন্য বেশ কিছু প্রোডাকশন হাউজে নিজের একাধিক ছবি দিয়েছিলেন সুদীপ্তা। কিন্তু তখন পর পর ৩ বার তাকে রিজেক্ট করা হয়েছিল।

Sudipta Banerjee comeback in Sohag Jol Serial

আর তার পরেই হটাৎ একদিন সুযোগ পান ‘খেলা’ সিরিয়ালে বিন্দু চরিত্রে। সুদীপ্তার কথায় এমন একটা সময় ছিল যখন তিনি শুটিংয়ে আসার আগে বাড়ি থেকে বেরোতেন মাত্র পঞ্চাশ টাকা নিয়ে। সেসময় নাকি দিনের পর দিন তার গাড়ির ভাড়াও বাকি থাকতো। একটা জলের বোতল কিংবা ছাতা কেনার টাকা টুকুও ছিল তার কাছে।

শুধু তাই নয় জুনিয়র আর্টিস্ট হওয়ায় শুরুর দিকে মেকআপ রুমে অনেকে তাকে বসতেও দিতেন না। কিন্তু চরম কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে গিয়েও কোনোদিন হার মানেননি সুদীপ্তা। নিজের ওপর আত্মবিশ্বাস টুকু বজায় রেখেই লড়াই চালিয়ে গিয়েছিলেন ‘সাত ভাই চম্পা’র নায়িকা।

তবে নায়িকা থেকে হটাৎ করে খলনায়িকা হয়ে যাওয়ায় একসময় অনেকের প্রশ্নের মুখে পড়েছিলেন অভিনেত্রী। এ সম্পর্কে অভিনেত্রীর জানিয়েছেন তিনি নিজে থেকেই খলনায়িকার চরিত্র বেছে নিয়েছেন। কারণ তিনি মনে করে এই ধরনের চরিত্রে অভিনয় করা অনেক বেশি কঠিন।

Related Articles

Back to top button