বিনোদনসিনেমা

৩ হাজার ঘন্টা ধরে তৈরি সোনায় মোড়া আলিয়ার বিয়ের লেহেঙ্গা! নিজেই জানালেন মনীশ মালহোত্রা

বৈশাখী লগ্নেই সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় সেলিব্রেটি কাপল রণবীর কাপুর (Ranbir Kapoor) এবং আলিয়া ভাট (Alia Bhatt)। দীর্ঘ ৫ বছর সম্পর্ক পরিণতি পেয়েছে ১৪ এপ্রিল। ৩ দিন হয়ে গেলেও ‘রালিয়া’ জুটির সেই রাজকীয় বিয়ের রেশ কাটছে না এখনও। সোশ্যাল মিডিয়া খুললেই বেরিয়ে আসছে বিটাউনের নবদম্পতির সেই স্বপ্নপূরণের নানা মুহূর্তের টুকরো ছবি।

মুম্বাইয়ের পালি হিলসের বাস্তুতেই চার হাত এক হয়েছে রণবীর আলিয়ার। আর আগের দিনই ওই বাড়িতেই বসেছিল এই তারকা দম্পতির মেহেন্দীর আসর। পরিবারের ঘনিষ্ঠ সদস্য এবং হাতে গোনা কয়েকজন বন্ধু বান্ধবদের নিয়ে মেহেন্দীর (Mahenndi) আসর জমে উঠেছিল তাদের। বিয়ের ছবি প্রকাশ্যে আনার পরেই মেহেন্দীর সেই বিশেষ মুহুর্তের নানান টুকরো ছবি শেয়ার করেছিলেন আলিয়া।


ছবিতে দুজনের চোখে মুখেই স্পষ্ট খুশির ছাপ। সেই ছবি দেখে নেটিজেনরা বলছেন ভালোবাসার মানুষকে বিয়ে করার আনন্দ বোধ হয় এরকমই হয়। বিয়ের খুঁটিনাটি প্রতিটি বিষয়েই নিজস্ব স্টাইল স্টেটমেন্ট তুলে ধরেছেন আলিয়া। তা সে বিয়েতে লালের বদলে সব্যসাচীর ডিজাইন করা আইভরি অর্গ্যাঞ্জা সিল্ক শাড়ি ব্লাউজ হোক মেহেন্দীর নজর কাড়া ফুসিয়া পিঙ্ক লেহেঙ্গা হোক। সব দিক থেকেই একেবারে অনন্য কাপুর পরিবারের নববধূ।


তবে নিজের স্বপ্নের মেহেন্দীতে আলিয়া সেলিব্রেটি ফ্যাশন ডিজাইনার মনীশ মালহোত্রার (Manish Malhotra) যে লেহেঙ্গা টি পরেছিলেন তা সত্যিই মিউজিয়ামে রাখার মতো। কারণ এই লেহেঙ্গা আর পাঁচ টা লেহেঙ্গার মতো একেবারেই সাধারণ লেহেঙ্গা নয়। চোখ জুড়ানো এই লেহেঙ্গার পিছনে রয়েছে এক বিশাল কর্মকাণ্ড। যা জানলে চোখ কপালে উঠবে যে কারও। গতকাল রাতেই মেহেন্দীর সাজে এই লেহেঙ্গা পরে থাকা আলিয়ার একটি ছবি শেয়ার করে এবিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছিলেন স্বয়ং মনীশ মালহোত্রা নিজে।

শিল্পীর নিজের কথায় এই ডিজাইনার গোলাপী ল্যাহেঙ্গা তৈরি করতে সময় লেগেছে মোট ৩০০০ ঘণ্টা, অর্থাৎ ১২৫ দিন। সেইসাথে তিনি আরও জানান যে ১৮০টি রঙিন টেক্সটাইল প্যাচে তৈরি এই ল্যাহেঙ্গায় রয়েছে সত্যিকারের সোনার জরি এবং অ্যাপ্লিকের কাজ। একেবারে হাতে বোনা সিল্কে রয়েছে ঠাসা বেনারসি ব্রোকেড, জ্যাকোয়ার্ড, বাঁধানি, কাছা, রেশম নট এবং কনের আগের পোশাকের কিছু স্ক্র্যাপ৷ মনীশ মালহোত্রার কথায় এই লেহেঙ্গা জুড়ে যেন স্বপ্ন দিয়ে বোনা এক নকশি কাঁথা৷

Related Articles

Back to top button