বিনোদনসিনেমা

পৃথ্বীরাজ চৌহানকে নিয়ে এ কি বললেন অক্ষয় কুমার! মন্তব্য ঘিরে ট্রোলড সোশ্যাল মিডিয়ায়

বছরভর বলিউডের অন্যতম ব্যস্ত অভিনেতা হলেন অক্ষয় কুমার (Akshay Kumar) । এক বছরে প্রায় তিন থেকে চারটি সিনেমা মুক্তি পায় অভিনেতার। তেমনই কিছুদিন আগেই মুক্তি পেয়েছিল অক্ষয় অভিনীত সিনেমা ‘বচ্চন পান্ডে’ (Bachchan Pandey)। যদিও সাউথের সিনেমার বিরাট দাপটের সামনে বক্স অফিসে কার্যত মুখ থুবড়ে পড়েছিল সিনেমাটি।

এবার মুক্তি পেতে চলেছে অক্ষয় অভিনীত যশ রাজ (Yash Raj) ব্যানারের সবচেয়ে ব্যয়বহুল সিনেমা পৃথ্বীরাজ (Prithviraj)। আগামী কাল অর্থাৎ ৩ জুন ভক্তদের অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে বড় পর্দায় মুক্তি পাচ্ছে পৃথ্বীরাজ। এবার রাত পোহালেই বলিউডের খিলাড়ির সিলভার স্ক্রিনে ঐতিহাসিক চরিত্র রাজপুত সম্রাট পৃথ্বীরাজ চৌহান হয়ে ফিরে আসার পালা। প্রসঙ্গত এই সিনেমা মুক্তির আগে থেকেই নিজের একটি মন্তব্যের কারণে শিরোনামে রয়েছেন অক্ষয় কুমার।

আসলে সম্প্রতি এ এন আই এর সাথে এক সাক্ষাৎকারে পৃথ্বীরাজ চৌহান নিয়ে আলোচনা চলাকালীন বলিউডের খিলাড়ি এক বিস্ফোরক মন্তব্য করে বসেন। তাঁর কথায় সম্রাট পৃথ্বীরাজ চৌহান আমাদের দেশের এত বড় একজন ঐতিহাসিক যোদ্ধা। অথচ দুর্ভাগ্যবশত আমাদের ইতিহাসের পাঠ্যপুস্তকে তাঁর সম্পর্কে মাত্র দুই থেকে তিন লাইনই লেখা রয়েছে।

সেইসাথে অভিনেতা জানিয়েছেন পরিবর্তে আক্রমণকারীদের বিষয়ে অনেক বেশী লেখা হয়েছে। কিন্তু আমাদের ভারতীয় রাজা মহারাজাদের সম্পর্কে অনেক বেশী লেখা হয়েছে। অথচ আমাদের ইতিহাসের পাঠ্যপুস্তকে সম্রাট পৃথ্বীরাজ চৌহানের সম্পর্কে তেমন কিছুই লেখা নেই। অক্ষয় কুমারের এই মন্তব্য প্রকাশ্যে আসতেই রে রে করে তেড়ে আসেন নেটিজেনদের একটা বড় অংশ।

সেই থেকেই অক্ষয় কুমার কে নিয়ে অনেকেই মজার ট্রোল করতে শুরু করেন। অনেকেই তার শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে ট্রোল করা শুরু করেন। একজন ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘নিজেই দশম শ্রেণীতে পৌঁছানোর আগে কয়েকবার ব্যর্থ হয়েছেন আর এখন তিনিই আমাদের বলছেন পাঠ্যবই কীভাবে লেখা উচিত। আশ্চর্যজনক!’ আরও একজন লিখেছেন ‘যখন কেউ হোয়াটসঅ্যাপ ইউনিভার্সিটিতে ইতিহাস পড়েন এবং কিছু বকওয়াস সিনেমা স্কুলে পড়ানো হয় না! NCERT পড়ুন’।কেউ লিখেছেন “স্কুল গিয়েছিলেন কাকু”।

Related Articles

Back to top button