বিনোদনভিডিও

সত্যিই ফাইটার! হাতে স্যালাইন চললেও মুখে হাসি, ঐন্দ্রিলার অদেখা মুহূর্তের ভিডিও শেয়ার করলেন দিদি

টলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী (Tollywood actress) ঐন্দ্রিলা শর্মার (Aindrila Sharma) প্রয়াত হয়েছেন দেখতে দেখতে তিনদিন পার হয়ে গেল। আস্তে আস্তে বাকি সবাই নিজের পুরনো জীবনে ফিরে গেলেও অভিনেত্রীর পরিবার, প্রিয়জনদের সময়টা এখনও রবিবার বেলা ১২:৫৯ মিনিটেই আটকে রয়েছে। এখনও পর্যন্ত এই অপূরণীয় ক্ষতিটা মেনে নিতে পারেননি তাঁরা।

প্রত্যেকে আশা করেছিলেন কিছু একটা মিরাকেল ঘটবে। ফের জীবনযুদ্ধে জয়ী হয়ে ফিরে আসবেন সদাহাস্যময়, প্রাণচঞ্চলক এই মেয়েটা। কিন্তু এবার আর তেমনটা হল না। সকলকে কাঁদিয়ে এই পৃথিবী থেকে চিরবিদায় নেন ঐন্দ্রিলা।

Take a look at the life story of famous Tollywood actress Aindrila Sharma

‘জিয়ন কাঠি’ অভিনেত্রীর পরিবার এখন তাঁর নানান স্মৃতি হাতড়ে বেরাচ্ছেন। ঐন্দ্রিলার দিদি ঐশ্বর্য শর্মার (Aishwarya Sharma) সম্পূর্ণ সোশ্যাল মিডিয়া যেমন ‘ঐন্দ্রিলাময়’। আদরের  ‘বুনু’র নানান ছবি, ভিডিও শেয়ার করছেন তিনি। সেই সঙ্গেই এখনও পর্যন্ত কামনা করছেন একটি মাত্র মিরাকেলের।

গতকাল যেমন ‘ছোট্ট বুনু’ ঐন্দ্রিলার একটি পুরনো ভিডিও শেয়ার করে নিজের মনের কথা লিখেছিলেন ঐশ্বর্য। সেই ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে, হাসপাতালে ভর্তি থেকে চিকিৎসা চলাকালীনই ক্যান্সারকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে প্রাণ খুলে নাচ করছেন অভিনেত্রী।

Aindrila Sharma with her sister Aishwarya Sharma

‘ঝুমুর’ অভিনেত্রীর পরনে রয়েছে হালরা গোলাপি রঙের হাসপাতালের পোশাক। মাথায় একই রঙের টুপি। হাতে গোঁজা রয়েছে স্যালাইনের পাইপ, ব্যান্ডেজ। চিকিৎসা চলার জন্য শারীরিক নানান ধকল গেলেও ঐন্দ্রিলার মুখের মিষ্টি হাসি দেখে সেকথা বোঝা দায়। ঐশ্বর্যর শেয়ার করা ভিডিওয় দেখে মনে হচ্ছে, দ্বিতীয়বার ক্যান্সার চিকিৎসা চলাকালীন রেকর্ড করা হয়েছে সেটি।

ঐন্দ্রিলার অদেখা ভিডিওটি শেয়ার করে তাঁর দিদি ঐশ্বর্য ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘শক্তি, সাহস, যুদ্ধ, জয়ের আর এক নাম আমার বুনু’। সেই সঙ্গে যোগ করেছেন একটি হৃদয়ের ইমোজিও। ‘জীবন জ্যোতি’ অভিনেত্রী যে চিরকাল হাসি মুখে শারীরিক সকল কষ্টের সম্মুখীন হয়েছে, তা আরও একবার প্রমাণিত হয়ে গেল ঐশ্বর্যর শেয়ার করা ভিডিও দেখার পর। সেই সঙ্গেই আবার অভিনেত্রীর প্রয়াণের পর তাঁর এই প্রাণচঞ্চল ভিডিও দেখে চোখে জলও এসে গিয়েছে অনেক নেটিজেনের।

Related Articles

Back to top button