বিনোদনসিরিয়াল

হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন ঐন্দ্রিলা! নতুন নায়িকা নিয়ে গোয়ায় শুরু সিনেমার শুটিং 

বাংলা টেলিভিশন জগতের জনপ্রিয় টেলি অভিনেত্রী হলেন ঐন্দ্রিলা শর্মা (Aindrila Sharma)। এই মুহূর্তে হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে মৃত্যুর সাথে রীতিমতো পাঞ্জা লড়ছেন অভিনেত্রী। ইতিপূর্বে দু-দুবার ক্যান্সারের মতো মারণব্যাধিকে হারিয়ে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছেন তিনি। তাঁর সেই লড়াই বাংলার অসংখ্য মানুষকে বেঁচে থাকার অনুপ্রেরণা জোগায়।

তাই এই মুহূর্তে গোটা বাংলার মানুষের ঈশ্বরের কাছে একটাই প্রার্থনা, যে করেই হোক যত দ্রুত সম্ভব সেরে উঠুক ‘জিয়নকাঠি’সিরিয়ালের তুলি অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা। মঙ্গলবার রাতে আচমকাই ব্রেন স্ট্রোক (Brain Stroke) হয় ঐন্দ্রিলার। বাড়িতে থাকা অবস্থাতেই অসাড় হয়ে গিয়েছিল অভিনেত্রীর গোটা শরীর। শুরু হয়েছিল বমিও। ওই অবস্থাতেই তড়িঘড়ি তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যেতেই চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন অভিনেত্রীর মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ শুরু হয়ে গিয়েছে।

Finally Sabyasachi Chowdhury opens up about Aindrila Sharma's health condition

তাই দেরি না করে তড়িঘড়ি অভিনেত্রীকে ঢোকানো হয় অপারেশন থিয়েটারে। মঙ্গলবার রাতেই হাওড়ার বেসরকারি হাসপাতালে অস্ত্রোপচার হয় ঐন্দ্রিলার মস্তিকে। তারপর থেকেই কোমায় চলে গিয়েছিলেন তিনি।যদিও পরদিন ২৪ ঘন্টার মধ্যেই চোখ মেলে তাকিয়েছিলেন ঐন্দ্রিলা। তবে এখনও অভিনেত্রীর অবস্থা বেশ আশঙ্কাজনক বলেই জানা যাচ্ছে।

Aindrila Sharma's mother opens up about her health condition

কিন্তু যদি পরিস্থিতি ঠিক থাকতো তাহলে হাসপাতালের বেড নয় ঐন্দ্রিলার এখন থাকার ছিল শুটিং ফ্লোরে। আসলে ‘ভাগাড়’ সিরিজ়ের পর নতুন ছবির কাজের জন্য গোয়ায় যাওয়ার কথা ছিল ঐন্দ্রিলা শর্মার। সম্প্রতি আনন্দবাজার অনলাইনে এমনটাই জানিয়েছিলেন অভিনেত্রীর মা শিখা শর্মা। কিন্তু এখন ঐন্দ্রিলা অসুস্থ। প্রতি মুহূর্ত মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে সে।

Finally Sabyasachi Chowdhury opens up about Aindrila Sharma's health condition

কিন্তু বিনোদন দুনিয়ায় ‘দ্য শো মাস্ট গো অন’! তাই সূত্রের খবর অসুস্থতার কারণে ঐন্দ্রিলা শুটিং করতে না পারলেও তাঁর পরিবর্তে নতুন নায়িকা নিয়ে ইতিমধ্যেই নতুন নায়িকা নিয়ে শটিং শুরু হয়েছে গোয়ায়। তবে ঐন্দ্রিলার এমন শারীরিক অসুস্থতার সময় নির্মাতাদের এমন আচরণ একেবারেই ভালো চোখে দেখছেন না ইন্ডাস্ট্রির একাংশ।অনেকের মতে ঐন্দ্রিলার সেরে ওঠার জন্য অন্তত কয়েকটা দিন অপেক্ষা করা উচিত ছিল সিনেমার নির্মাতাদের।

Related Articles

Back to top button